× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৬ জানুয়ারি ২০২০, রবিবার

সোনাজয়ী প্রিয়া শঙ্কামুক্ত

খেলা

সামন হোসেন, কাঠমান্ডু (নেপাল) | ৫ ডিসেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৯:৩০

আগের দিন কুমির ব্যক্তিগত ইভেন্টে স্বর্ণ জেতা মারজানা আক্তার প্রিয়া ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে আরেকটি সোনা জয়ের লড়াইয়ে নেমেছিলেন। সেখানেই গুরুতর আহত হলে হাসপাতালে নিতে হয় স্বর্ণ জয়ী এই ক্রীড়াবিদকে। আশার খবর হলো, সিটি স্ক্যানে গুরুতর কিছু ধরা পড়েনি। গতকাল দুই ঘণ্টা চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল ছাড়েন দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে (এসএ গেমসে) বাংলাদেশকে সোনার পদক এনে দেয়া এই কারাতেকা।
গতকাল দুপুর সোয়া ১২টায় কাঠমান্ডুর সাদদোবাতোর ইন্টারন্যাশনাল স্পোর্টস কমক্সেক্সে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দলগত কুমি ইভেন্টের সেমিফাইনাল লড়াইয়ে নামে বাংলাদেশ। দলে ছিলেন গতকালের সোনাজয়ী হুমায়রা আক্তার অন্তরা, মারজানা আক্তার প্রিয়া ও প্রথম দিন রৌপ্য জেতা মাউন জেরা বর্ণা। প্রথমে ম্যাটে নামেন বর্ণা। তিনি আহত হয়েও ৮-৪ ব্যবধানে জিতে ম্যাট ছাড়েন। এরপর ম্যাটে নামেন প্রিয়া।
শুরুতেই শ্রীলঙ্কার বান্দারা তার পেটে আঘাত করেন। তাতে শুরুতেই চিকিৎসা নিতে হয় তাকে। এরপর বান্দারা তার মুখে আঘাত করে। ঠোঁট ফেটে রক্ত বেরোয়। আবার চিকিৎসা নেন। তখন বান্দারা ১-০ পয়েন্টে এগিয়ে। সময় হাতে ১ মিনিট ৩২ সেকেন্ড। চিকিৎসা নিয়ে টলতে টলতে আবার ম্যাটে আসেন মারজানা আক্তার প্রিয়া। বেশ কিছুক্ষণ লড়াই করেন। এ সময় বান্দারার একটি আঘাত তার মাথায় লাগে। ম্যাচ শেষ হতে তখনও ৪৭ সেকেন্ড বাকি। প্রিয়া টলতে থাকেন। রেফারির নির্দেশে মেডিক্যাল টিম আবার ম্যাটে ওঠে। প্রিয়ার রক্তচাপ মাপে, আইস ব্যাগ ঠোঁটে লাগায়। কিন্তু প্রিয়া উঠে দাঁড়াতে পারছিলেন না। মেডিক্যাল টিমের হাতে ভর দিয়ে ম্যাট ছাড়েন। একটা সময় জ্ঞান হারান। ভেন্যুতে উপস্থিত ডাক্তাররা নানা চেষ্টা করতে থাকেন। প্রিয়ার চোখ বার বার বন্ধ হয়ে যাচ্ছিল। মেডিকেল টিম চেষ্টা করছিল তাকে অচেতন হওয়ার হাত থেকে রক্ষা করতে। এসময় ভড়কে যায় মেডিকেল টিমের সবাই। অস্থির হয়ে ওঠেন তারা। একটা সময় অ্যাম্বুলেন্সে করে পাশের হাসপাতালে নেয়া হয় মারজানাকে। পরে সেখান থেকে নেয়া হয় সরকারি হাসপাতালে। কোচ জসিম উদ্দিন জানান, প্রিয়া মাথায় আঘাত পেয়েছেন।
কারাতে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক বাবু ক্য শৈ হ্লা জানিয়েছেন, গাল আর ঘাড়ের মাঝামাঝিতে সে আঘাত পেয়েছে। মেডিকেল টিমের মতে, পেটেও সে আঘাত পেয়েছে। দৃশ্যমান ঠোঁটের আঘাত তো রয়েছেই। সব মিলিয়ে গুরুতর অবস্থায় তাকে নিয়ে যাওয়া হয় দশরথ স্টেডিয়ামের কাছে ব্লুু ক্রস হাসপাতালে। জরুরী বিভাগে অর্থো সার্জন বিভাগের সিনিয়র কনসালট্যান্ট প্রাজ্জ্বল মানের কাছ থেকে প্রিয়া চিকিৎসা নেয়ার পর তার সঙ্গে কথা বলেন বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা। জানান, মারজানা শঙ্কামুক্ত।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর