× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার

‘বিএনপি’র আন্দোলনের হুমকি আদালত অবমাননার শামিল’

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ৫ ডিসেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ৯:৩২

বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জামিনের জন্য তাদের আন্দোলনের হুমকি আদালত অবমাননার শামিল বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। গতকাল রাজধানীর ঐতিহাসিক  সোহরাওয়ার্দী  উদ্যানে আওয়ামী লীগের সম্মেলন মঞ্চ পরিদর্শন পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। বলেন, খালেদা জিয়ার জামিন দেবে আদালত, সরকার নয়। খালেদা জিয়ার জামিনের জন্য আন্দোলন করার অর্থ বিএনপি আদালত মানে না। বিএনপি  নেতাদের বক্তব্যে প্রমাণিত হচ্ছে তারা  দেশের বিচার ব্যবস্থা, আইন-আদালত মানে না। ড. হাছান মাহমুদ বলেন, সরকার খালেদা জিয়ার জামিন  দেয়ার এখতিয়ার রাখে না। তার মানে তাদের আন্দোলন আদালতের বিরুদ্ধে। সে কারণে আদালত স্বপ্রণোদিত হয়ে কিছু করে কী না, সেটিই  দেখার বিষয়।
গণমাধ্যকর্মীদের এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী  শেখ হাসিনার দক্ষ  নেতৃত্বে দেশ অদম্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী রাজনীতিকে পরিশুদ্ধ করতে চান। জাতি ও  দেশকে এগিয়ে নিতে চান। সমাজকে সুন্দর ও শান্তিময় করতে চান। সে লক্ষ্যকে সামনে রেখে প্রধানমন্ত্রী কাজ করে যাচ্ছেন। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সম্মেলনের মধ্যদিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি  শেখ হাসিনা দলকে আরও গতিশীল এবং সুসংগঠিত করতে চান। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী সন্ত্রাস ও দুর্নীতিবিরোধী অভিযান শুরু করেছেন। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। তথ্যমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগের সম্মেলনের মধ্যদিয়ে দলে নতুন নেতৃত্ব আসবে। দলকে দুর্বৃত্তায়নমুক্ত করতেই এ সম্মেলন। পরে তিনি আওয়ামী লীগের আগামী ২০ ও ২১শে ডিসেম্বর জাতীয় সম্মেলনের জন্য মঞ্চ তৈরির কার্যক্রম ঘুরে  দেখেন। এ সময় গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল এমপি, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী,  কেন্দ্রীয় নেতা মির্জা আজম এমপি, যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ, সাইফুর রহমান  সোহাগ, গণপূর্ত অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী সাহাদাত  হোসেন, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এ এফ এম  সোহরাওয়ার্দ্দী উপস্থিত ছিলেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর