× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৯ জানুয়ারি ২০২০, রবিবার

কোম্পানীগঞ্জে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যু

বাংলারজমিন

কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি | ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ৭:৫৫

কোম্পানীগঞ্জে বসুরহাট পৌরসভার মা ও শিশু হাসপাতালের ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি মায়ের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাজার হাজার নারী-পুরুষ ও মৃতের আত্মীয়-স্বজনেরা হাসপাতাল অবরুদ্ধ করে রাখে এবং বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। পুলিশ পাহারায় রয়েছে হাসপাতাল। অপরদিকে চলছে নিহতের ঘটনায় এলাকাবাসীর বিক্ষোভ মিছিল করেছে। জানা যায়, উপজেলার চরকাঁকড়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের কামরুজ্জামানের স্ত্রী নুর নাহার (২০)-এর প্রসব বেদনা উঠলে গতকাল সকাল ১১টায় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার রওশন জাহান লাকী পার্শ্ববর্তী বেসরকারি প্রাইভেট হাসপাতাল মা ও শিশু হাসপাতালে ভর্তি করতে বলেন। ভর্তি করার পর তার প্রসব বেদনা বেড়ে যাওয়ায় ডা. লাকী ব্যথা নিবারণের জন্য ইনজেকশন প্রয়োগ করেন। প্রয়োগের পর পরই তার অবস্থা অবনতি ঘটলে তাকে দ্রুত এম্বুলেন্সে করে পুনরায় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে দুপুর ১২টায় মৃত্যু ঘটে।
তার মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে হাজার হাজার নারী-পুরুষ ও তার আত্মীয় স্বজনেরা হাসপাতাল অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। পরে কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মোস্তাফিজুর রহমান একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনা স্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। প্রসূতির স্বামী কামরুজ্জামান জানান, আমার স্ত্রী সুস্থ। প্রসব বেদনা উঠলে আমার স্ত্রীকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসি। সেখানে কর্তব্যরত ডা. লাকী মা ও শিশু হাসপাতালে ভর্তি করানোর জন্য পাঠায়। পরে ডা. লাকী এসে ইনজেকশন প্রয়োগ করলে সঙ্গে সঙ্গে আমার স্ত্রীর মৃত্যু হয়। ডা. লাকী বলেন, রোগীর প্রচণ্ড ব্যথা উঠায় রোগীকে ব্যথা কমানোর ইনজেকশন প্রয়োগ করি। এরপর ব্যথা না কমায় তাকে কোম্পানীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করি। নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এ প্রসঙ্গে ওসি তদন্ত বলেন, এখনও থানায় মামলা হয়নি। মামলার পর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর