× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৯ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার

ভুটানের বিপক্ষে ১০ উইকেটে জয় তবুও আক্ষেপ সৌম্যদের

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার, কাঠমান্ডু (নেপাল) থেকে | ৭ ডিসেম্বর ২০১৯, শনিবার, ৯:২০

এসএ গেমসে স্বর্ণ নিশ্চিত করতে শক্তিশালী ক্রিকেট দলই পাঠিয়েছে বাংলাদেশ। জাতীয় দলে খেলা চার ক্রিকেটার আছেন এই অনূর্ধ্ব-২৩ দলে। আসরে বাংলাদেশের চার প্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিকেটে নবীন ভুটান, মালদ্বীপ, নেপাল ও শ্রীলঙ্কা। আসরে খেলছে না ভারত-পাকিস্তান। এর মধ্যে জাতীয় দলে খেলা দুজন ক্রিকেটার নিয়ে গড়া শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-২৩ দলটাই বাংলাদেশের জন্য যা একটু চ্যালেঞ্জ। প্রথম ম্যাচে মালদ্বীপকে ১১০ রানে হারায় সৌম্য-শান্তরা। গতকাল ভুটানকে হারালো ১০ উইকেটে। তবে অপেক্ষাকৃত দুর্বল দুই দলের বিপক্ষে সহজ জয় পেলেও বোলারদের পারফরমেন্সে খুশি হতে পারেননি সৌম্য সরকার।
বিশেষ করে ভুটানকে অলআউট করতে না পারার আক্ষেপ আছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের এই ওপেনারের। গতকাল কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিশ্ববিদ্যালয় ক্রিকেট মাঠে আগে ব্যাট করতে নেমে ২০ ওভারে সাত উইকেট হারিয়ে ৬৯ রান সংগ্রহ করে ভুটান। জবাবে সৌম্য সরকারের অপরাজিত হাফ সেঞ্চুরিতে ৬.৫ ওভারে দশ উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ।    
টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ে নেপাল ১২তম, ভুটান ৬৯ ও মালদ্বীপ রয়েছে ৭৬ নম্বরে।। অর্থাৎ এ তিনটি দলের বিপক্ষে সৌম্যদের দাপুটে জয়ই প্রত্যাশিত। তবে র‌্যাঙ্কিংয়ের ৬৯তম দলের বিপক্ষে টেস্ট খেলুড়ে দেশের অনূর্ধ্ব-২৩ দলের বোলারদের এ পারফরম্যান্স মোটেও প্রত্যাশিত নয়। নেপালে ত্রিভুবন বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে জয়ের পর টুর্নামেন্টের সবচেয়ে অভিজ্ঞ খেলোয়াড় সৌম্য সরকার বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় উইকেট অনুযায়ী খুব ভালো (পারফরম্যান্স) হয়নি। আমরা এদের (ভুটান) বিপক্ষেও ১০টা উইকেট নিতে পারিনি। এটা আমার কাছে খারাপ লেগেছে।’ ভুটানের বিপক্ষে রান কম দিলেও ২ উইকেটের বেশি পাননি বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দলের কোনো বোলার। আগের ম্যাচে পাঁচ উইকেট পাওয়া তানভীর এদিন পেয়েছেন মাত্র ১ উইকেট। ৪ ওভারে ৯ রানে ২ উইকেট নেন পেসার মানিক উদ্দিন। মেহেদী হাসান রানা, মিনহাজুল আবেদীন, সৌম্যরা ১টি করে উইকেট নেন। আফিফ হোসেন এ ম্যাচে বল করেননি। নেপালের বিপক্ষে তাই বোলারদের আরও ভালো করার তাগিদ দিলেন সৌম্য। বল হাতে ১ উইকেটের পর ব্যাটিংয়ে ২৮ বলে অপরাজিত ৫০ রান করে ম্যাচসেরা খেলোয়াড়ের খেতাব কুড়ানো সৌম্য সরকার বলেন, ‘আশা করি পরের ম্যাচগুলোয় প্রধান বোলাররা ভালো করবে। নেপালের বিপক্ষে অন্তত যেন ১০টা উইকেট নিয়ে ভালোভাবে ম্যাচটা জিততে পারি।’
এদিন ভুটান ব্যাটিংয়ে নেমেছিল টস জিতে। প্রথম উইকেট পেতে বাংলাদেশকে অপেক্ষা করতে হয় নবম ওভার পর্যন্ত! ২৩ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন লেগ স্পিনার মিনহাজুল আবেদিন আফ্রিদি। ১ চার ও ছক্কায় ২৯ বলে ১৫ রান করা স্টাম্পড হন তেনজিন ওয়াংচুক জুনিয়র। আরেক ওপেনার জিগমে দর্জি ৩৭ বলে ১২ রান করে বোল্ড হন তানভির ইসলামের বাঁহাতি স্পিনে। এরপর দুই অঙ্ক ছুঁয়েছেন কেবল চারে নামা জিগমে সিঙ্গে (১৬ বলে ১৩)। বাংলাদেশের চার বোলার নিয়েছেন একটি করে উইকেট। শেষ দিকে ২ উইকেট নিয়ে সফলতম বোলার পেসার মানিক খান। রান তাড়ায় বাংলাদেশ জিতেছে অনুমিত গতিতেই। ছক্কায় ম্যাচ শেষ করার পাশাপাশি নিজের ফিফটি ছুঁয়েছেন সৌম্য। তার ইনিংসে ৫ চারের সঙ্গে ছিল ৩ ছক্কা। মোহাম্মদ নাঈম শেখ অপরাজিত থাকেন ১৬ বলে ১৩ রান করে। আসরে আজ বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ নেপাল। শান্ত বাহিনী আগামীকাল খেলবে শ্রীলঙ্কা অনূর্ধ্ব-২৩ দলের বিপক্ষে। সোনার পদকের লড়াই হবে আগামী সোমবার।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর