× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৮ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার

রাস্তা কেটে পুকুর, ভোগান্তিতে ১০ গ্রামের মানুষ

অনলাইন

বদরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি | ৭ ডিসেম্বর ২০১৯, শনিবার, ৩:২৭

রংপুরের বদরগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে শত বছর ধরে মানুষের চলাচলের একমাত্র রাস্তা কেটে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে অন্তত: ১০ গ্রামের মানুষ চলাচল করতে চরম ভোগান্তির মুখে পড়েছে। এ ঘটনায় গ্রামবাসীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের সাতঘরিয়া পাড়ায়।

এলাকাবাসী ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সাধারণ মানুষের চলাচলের একমাত্র রাস্তার মালিক দাবি করে গত বুধবার সন্ধ্যার দিকে অন্তত: ৫০ ফুট জায়গার এক পাশে কেটে পুকুরে পরিণত করেন তোজাম্মেল হোসেন ও খায়রুল ইসলাম। অথচ শত বছর ধরে ওই রাস্তা দিয়ে সাধারণ মানুষ যাতায়াত করে আসছে।

সম্প্রতি কেটে নেয়া রাস্তাটি সংস্কার করতে রামনাথপুর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ১ লাখ ৪৫ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। গত বুধবার সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মেম্বার রবিউল ইসলাম লোকবল নিয়ে রাস্তাটি সংস্কার করার উদ্যোগ নেন।

এ সময় তোজাম্মেল হোসেন ইউপি মেম্বারকে অপমান করে রাস্তা সংস্কার করতে বাধা দিয়ে শ্রমিকদের হটিয়ে দেন।
একপর্যায়ে ওইদিন সন্ধ্যার দিকে তোজাম্মেল হোসেন ও তার আত্মীয় খায়রুল ইসলাম মাস্টার লোকজন নিয়ে অন্তত: ৫০ ফুট রাস্তার এক পাশে কেটে পুকুর খনন করেন। এতে সাধারণ মানুষসহ যানবাহন চলাচলে চরম দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে গ্রামবাসীর মধ্যে দেখা দেয় চরম উত্তেজনা। পরে বিষয়টি নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল মামুন রাস্তা কাটার কারণ জানতে চাইলে তাকেও অপমান করা হয়।

অভিযুক্ত তোজাম্মেল হোসেন ও তার স্বজনদের দাবি এলাকার কিছু মানুষ আমাদের মালিকানাধীন জমির ওপর দিয়ে জোর করে রাস্তা নির্মাণের চেষ্টা করছে। তাই আমরা ওই জমির কিছু অংশ কেটে পুকুর বানিয়েছি।

ওই এলাকার প্রবীণ ব্যক্তি আবদুল আজিজ (৬৫) বলেন, যুগযুগ ধরে আমাদের বাপ-দাদারাও ওই রাস্তা দিয়ে এতদিন নির্বিঘেœ যাতায়াত করেছে। এতে কেউ কোনদিন বাধা হয়ে দাঁড়ায় নি। এখন হঠাৎ করে ইর্ষান্বিত হয়ে তোজাম্মেল লোকজন নিয়ে রাস্তা কেটে দিয়েছে।

রামনাথপুর ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার রবিউল ইসলাম বলেন, শত বছরের আগের চলাচলের রাস্তা নিজেদের দাবি করে ওই এলাকার খায়রুল মাস্টার ও তোজাম্মেল গায়ের জোরে রাস্তা কেটে দেয়। এতে মানুষজন রিকশা-ভ্যান নিয়ে যাতায়াত করতে পারছে না। তারা আইনের কোন তোয়াক্কাই করছে না। এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যানের অনুরোধও মানছেন না তারা।
   
ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, নিজেদের জমি দাবি করে একটি পক্ষ অন্যায়ভাবে রাস্তা কেটে নিয়েছে। বিষয়টি ইউএনও স্যারকেও অবগত করা হয়েছে। এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর