× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ৩০ জানুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার
এসএ গেমস ক্রিকেট

নেপালকে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার, কাঠমান্ডু (নেপাল) থেকে | ৮ ডিসেম্বর ২০১৯, রবিবার, ৯:২১

একদিন আগে পোখারায় স্বাগতিক নেপালকে হারিয়ে সোনা জয়ের মঞ্চে প্রবেশ করে সালমা-জাহানারারা। পুরুষ ক্রিকেটেও সোনা জয়ের খুব কাছে পৌঁছেছে পুরুষ ক্রিকেট দল। গতকাল কাঠমান্ডুতে নেপালকে ৪৪ রানে হারিয়ে ১৩তম সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমসে ফাইনাল নিশ্চিত করে শান্ত-সৌম্যরা। টসে হেরে আগে ব্যাট করে অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত ও আফিফ হোসেনের ফিফটিতে বাংলাদেশ তোলে ১৫৫ রান। জবাবে ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১১১ রানে থামে নেপাল। অপরাজিত ৭৫ রানের ইনিংসে ম্যাচ সেরা হয়েছেন শান্ত। তিন ম্যাচের সবক’টিতে জিতে ৬ পয়েন্ট নিয়ে ফাইনালে উঠলো বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দল। আগামীকাল সোনা জয়ের লড়াইয়ে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হবে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।
তার আগে আজ রাউন্ড রবিন লীগ পর্বের শেষ ম্যাচে দুই ফাইনালিস্ট একে অপরের মুখোমুখি হবে।
গতকাল ম্যাচের সময় পরিবর্তন করে বাংলাদেশকে মানসিক চাপে ফেলতে চেয়েছিল স্বাগতিক নেপাল। সূচি অনুযায়ী দু’দলের ম্যাচটি হওয়ার কথা ছিল সকাল ১১ টায়। কিন্তু আগের দিন জানিয়ে দেয়া হয় ম্যাচ পৌনে দশটায়। সকালে উইকেটের সুবিধা কাজে লাগাতে টসে জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় নেপাল। ত্রিভুবন বিশ্ববিদ্যালয়ের পাহাড় ঘেরা ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টস হেরে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশকে শুরুতেই কাঁপিয়ে দেন নেপালের অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার পরশ। নিজের প্রথম দুই ওভারে তিনি ফেরান মোহাম্মদ নাঈম শেখ, সৌম্য সরকার ও সাইফ হাসানকে। স্কোর দাঁড়ায় ৩ উইকেটে ১৬ রান। চতুর্থ উইকেটে ইয়াসির আলির সঙ্গে ৪৩ রানের জুটি গড়ে বিপর্যয় কিছুটা কাটিয়ে ওঠেন অধিনায়ক শান্ত। ১৪ রান করে অবিনাশ বোহারার বলে ইয়াসির ফিরলে ভাঙে জুটি। পঞ্চম উইকেটে আফিফ হোসেনকে নিয়ে ৫৬ বলে স্কোরবোর্ডে ৯৪ রান যোগ করেন শান্ত। পবন সারাফকে ছক্কা মেরে ৪৫ বলে ফিফটিতে পৌঁছান বাংলাদেশ অধিনায়ক। অন্যপ্রান্তে ২৫ বলে ফিফটি তুলে নেন আফিফ। শেষ ওভারে দীপেন্দ্র সিং আইরির বলে আউট হওয়ার আগে ২৮ বলে ছয়টি চার ও এক ছক্কায় ৫২ রান করেন আফিফ। ৬০ বলে চারটি করে চার ও ছক্কায় শান্ত অপরাজিত থাকেন ৭৫ রানে। ৪ ওভারে ১৫ রান খরচায় ৩ উইকেট নেন পরশ খড়কা। রান তাড়ায় নেপাল ১৪ রানের মধ্যে হারায় ৩ উইকেট। বাঁহাতি স্পিনার তানভীর ইসলাম টানা দুই বলে তুলে নেন পরশ ও পবনকে। পরের ওভারে পেসার সুমন খান ফেরান আরিফ শেখকে। ৪৩ বলে তিনটি চার ও এক ছক্কায় ৪৩ রান করে সৌম্যর বলে আউট হন জ্ঞানেন্দ্র। তানভীর ও মেহেদির পাশাপাশি দুটি করে উইকেট পেয়েছেন সৌম্য এবং সুমন।
নিজেদের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ মালদ্বীপকে ১০৯ রানে এবং দ্বিতীয় ম্যাচে ভুটানকে ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারায়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর