× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২০ জানুয়ারি ২০২০, সোমবার

নেতাকর্মীদের ওপর আঘাত করে কেউ শান্তিতে থাকতে পারবে না: শামীম ওসমান

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ থেকে | ৮ ডিসেম্বর ২০১৯, রবিবার, ৯:২৭

শামীম ওসমান বেঁচে থাকতে নেতাকর্মীদের ওপর আঘাত করার পর কেউ যদি মনে করে নারায়ণগঞ্জ শান্ত থাকবে তার চেয়ে বোকার রাজ্যে আর কেউ বাস করবে না। আমার কর্মীর গায়ে আঁচড় দিয়ে নারায়ণগঞ্জে কেউ একঘণ্টাও আরামে ঘুমাতে পারবে না। গতকাল দুপুরে ফতুল্লার লামাপাড়ায় নাসিম ওসমান মেমোরিয়াল এমিউজমেন্ট (নম) পার্কে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে শামীম ওসমান এসব কথা বলেন। শামীম ওসমান বলেন, সরকারের বিরুদ্ধে দেশ ও দেশের যেমন ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে, ঠিক তেমনই নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে। তিনি বলেন, ২০১৮ সালের ১৬ই জানুয়ারি নগরের বঙ্গবন্ধু সড়কে হকারদের সঙ্গে নাসিক মেয়র আইভী ও তার অনুসারিদের সংঘর্ষ হয়। সেখানে মামলায় আমাকে ওই ঘটনার ইন্ধনদাতা উল্লেখ করে দলেরই ৯ জন নেতার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, ওই ঘটনায় উচ্চ আদালতে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, আইন মন্ত্রনালয়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়, পুলিশের আইজিপি, নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও সংশ্লিষ্ট থানার ওসিকে বিবাদী করে রিট করা হয়েছে। সরকারি দল করে আইভী স্পষ্ট ভাবে সরকারেরই বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে।
তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে মামলা রেকর্ড হওয়ার পর দলের নেতা কর্মীরা আমাকে অনুরোধ করে বলে ভাই আপনি কয়েকদিনের জন্য দেশের বাইরে চলে যান। আমরা দেখাতে চাই নারায়ণগঞ্জের রাজপথ কাদের দখলে থাকে। শেখ হাসিনার কর্মীদের না কি খন্দকার মোশতাকের অনুসারিদের। নেতা কর্মীদের ভাষা বুঝতে পেরেই আমি সম্মেলনে এসেছি কিছু কথা বলতে। তিনি বলেন, যেহেতু আইভীর সঙ্গে হকারদের সংঘর্ষের ঘটনায় আমাকে ইন্ধনদাতা বলা হচ্ছে, তাই পুলিশ প্রশাসনের কাছে এমপি হিসেবে নয় আসামি হিসেবে অনুরোধ করে বলছি মামলাটির তদন্ত করেন। তদন্ত করলেই সেদিনের ঘটনার প্রকৃত সত্য বেরিয়ে আসবে। ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে এই মামলা করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। আয়োজিত সম্মেলনে ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম সাইফ উল্লাহ বাদলের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহিদ মোহাম্মদ বাদল মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা প্রমুখ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর