× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৯ জানুয়ারি ২০২০, রবিবার

‘সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হবে গবেষণাভিত্তিক প্রতিষ্ঠান’

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে | ৯ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার, ৮:০১

 সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডা. মোর্শেদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন, সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হবে একটি আন্তর্জাতিক মানের গবেষণাভিত্তিক প্রতিষ্ঠান। এখানে চিকিৎসা বিজ্ঞান নিয়ে উন্নত গবেষণার সব সুযোগ-সুবিধা থাকবে। গতকাল চৌহাট্টাস্থ বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী কার্যালয়ে সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন ও কার্যক্রমের অগ্রগতি নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন ডা. মোর্শেদ আহমদ চৌধুরী। তিনি বলেন, বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি ও ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ২০১৮ সালের ১লা অক্টোবর জাতীয় সংসদে দেশের চিকিৎসা ক্ষেত্রে উচ্চশিক্ষা গবেষণা ও সেবার মান এবং সুযোগ সুবিধা সম্প্রসারণ ও উন্নয়নের নিমিত্তে ‘সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০১৮’ পাস হয়। এরপর সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০১৮ এর ধারা ১১ (১) অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর মহামান্য রাষ্ট্রপতি তাকে চার বছর মেয়াদে প্রথম ভাইস-চ্যান্সেলর হিসেবে নিয়োগ করেন। একই বছরের ২০শে নভেম্বর তিনি ভাইস-চ্যান্সেলর পদে যোগদানের পর আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের যাত্রা শুরু হয়। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষের অব্যবহৃত বাসভবন ভাড়া করে বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী কার্যালয়ে কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। কিন্তু ভবনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কার্যক্রম পরিচালনায় প্রয়োজনের তুলনায় একেবারেই অপ্রতুল।
উপাচার্য ডা. মোর্শেদ আহমদ চৌধুরী আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সদয় সম্মতিসহ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্পের জন্য সিলেট জেলার দক্ষিণ সুরমা উপজেলার গোয়ালগাঁও মৌজার ৫০.২২ একর এবং জেএল নং-১১৮ হাজরাই মৌজার ৩০.০৯ একরসহ সর্বমোট ৮০.৩১ একর ভূমি ১৩৮.১৫ কোটি টাকা মূল্যে অধিগ্রহণের অনুমতিপত্র পাওয়া গেছে। সিলেটের জেলা প্রশাসক এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে প্রয়োজনীয় যোগাযোগ রক্ষা করে সার্বিক কাজটি দ্রুত এগিয়ে নেয়ার জন্য যথারীতি কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, সিলেট বিভাগের সব মেডিকেল কলেজ, ডেন্টাল কলেজ ও নার্সিং কলেজ সমূহের আবেদনের প্রেক্ষিতে কলেজ পরিদর্শন শাখা সেগুলো যাচাই-বাছাই করে ২টি সরকারি মেডিকেল কলেজ, ৪টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজ, ১টি সরকারি নার্সিং কলেজ, ৩টি বেসরকারি নার্সিং কলেজ এবং ১টি বেসরকারি ডেন্টাল কলেজসহ মোট ১১টি স্বাস্থ্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে প্রাথমিক অধিভুক্তি প্রদান করেছে। অধিভুক্ত নার্সিং কলেজ সমূহের মধ্যে ২টি কলেজে পোস্ট বেসিক বিএসসি ইন নার্সিং কোর্সে ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে এবং মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজ সমূহের ভর্তি কার্যক্রম চলমান রয়েছে যা শেষ হওয়ার পরপরই রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম সম্পন্ন শুরু হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর