× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৯ অক্টোবর ২০২০, বৃহস্পতিবার

এজলাসে হট্টগোলের ঘটনায় ব্যবস্থা চেয়ে লিগ্যাল নোটিশ

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার | ৯ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার, ৮:১০

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন শুনানিতে হট্টগোলের ঘটনা তদন্ত এবং যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা  নেয়ার দাবি জানিয়ে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী রাশিদা চৌধুরী নিলু। গতকাল রেজিস্ট্রার জেনারেল, আপিল বিভাগের রেজিস্ট্রার ও হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রার বরাবর এই  নোটিশ পাঠানো হয়।  আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ না নিলে হাইকোর্টে রিট দায়ের করবেন বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়।

গত ৫ই ডিসেম্বর আপিল বিভাগের এক নম্বর এজলাসে হট্টগোলের ঘটনায় বিভিন্ন পত্র-পত্রিকার প্রকাশিত প্রতিবেদন সংযুক্ত করে আইনজীবী নিলু এই  নোটিশ পাঠিয়েছেন। নোটিশ দাতা আইনজীবী রাশিদা চৌধুরী বলেন, গত ৫ই ডিসেম্বর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন শুনানির সময় হট্টগোলের ঘটনা তদন্ত এবং যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়ে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছি। আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ না নিলে রিট করবেন বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়।

গত ৫ই ডিসেম্বর, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মেডিকেল বোর্ডের প্রতিবেদন দাখিলে সময় চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম সময় আবেদন করেন। আদালত  সময় মঞ্জুর করে ১১ই ডিসেম্বরের  মধ্যে প্রতিবেদন এবং ১২ই ডিসেম্বরের মধ্যে শুনানির জন্য পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করেন। এ সময় খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন জামিন আবেদন করেন। একপর্যায়ে মেডিকেল রিপোর্ট ৮ বা ৯ ডিসেম্বর দিতে নির্দেশনার আবেদন জানান।
কিন্তু তারিখ পরিবর্তন করতে সম্মত হননি আদালত। এর পরপরই বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা আদালত কক্ষে হইচই শুরু করেন। একপর্যায়ে বিচারকরা এজলাস কক্ষ ত্যাগ করেন। ফের ১১টা ৩০ মিনিটে আদালত বসলে জয়নুল আবেদীন শুনানি করতে চান। কিন্তু আদালত তাতে সায় দেননি। এর মধ্যে হট্টগোলের কারণে অন্য মামলার শুনানিও ব্যাহত হয়। এ সময় বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা এজলাস কক্ষে খালেদা জিয়ার জামিনের পক্ষে বিভিন্ন শ্লোগান দেন। পরে আপিল বিভাগের বিচার কাজ শেষ হওয়ার নির্ধারিত সময়সীমা সোয়া ১টার দিকে এজলাস কক্ষ ত্যাগ করেন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ছয় বিচারপতির বেঞ্চ। পরে আইনজীবীরাও বের হয়ে যান।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর