× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৭ জানুয়ারি ২০২০, সোমবার

আরচারিতে ছয়ে ছয় বাংলাদেশের

খেলা

সামন হোসেন পোখারা (নেপাল) থেকে | ৯ ডিসেম্বর ২০১৯, সোমবার, ৯:২৪

পোখারা আরচারি স্টেডিয়ামের চারদিক পাহাড়ঘেরা। একদিনে অন্নপূর্ণ অপরদিকে হিমালয়ের বরফ চিকচিক করছিল। সকালে সূর্য কিরণ বরফের উজ্জ্বলতা বাড়িয়েছে বহুগুণ। সেই উজ্জ্বলতাকেও কাল ছাপিয়ে গেছেন বাংলাদেশের আরচাররা। একদিনে এক ডিসিপ্লিনে ছয়টি সোনা জিতে নতুন ইতিহাস গড়েছেন তারা। ছেলে ও মেয়েদের রিকার্ভ দলগত ইভেন্ট ও মিশ্র রিকার্ভে এসেছে তিনটি সোনা। পরের দুটি সোনা এসেছে ছেলে ও মেয়েদের কম্পাউন্ড ইভেন্ট আর কম্পাউন্ড মিশ্র দলগত ইভেন্টে। কাল সোনায় মোড়ানো দিনের শুরুটা হয় রোমান সানা, তামিমুল ইসলাম ও হাকিম আহমেদ রুবেলের হাত ধরে।
আর শেষ বিকালটা রাঙান সুস্মিতা বণিক ও সোহেল রানা।
আগের দিন দশ ইভেন্টের প্রতিটির ফাইনাল নিশ্চিত করে ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন আরচাররা। কিন্তু আরচাদের মুখে কোনো সাড়া-শব্দ ছিল না। এমনকি মিডিয়া ফ্রেন্ডলি জার্মান কোচ মার্টিন ফ্রেডরিক ‘রা’ করেননি শিষ্যদের পারফরমেন্স নিয়ে। কাল যেমন গলা ছেড়েই কথা বলেন বাংলাদেশের আরচারিকে হিমালয়ের উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া এই জার্মান কোচ। আশা দিলেন আজকের সবকটি সোনাও নিজেদের ঘরো তোলার। পোখারায় রোমান সানা, তামিমুল ইসলাম ও হাকিম আহমেদ রুবেলে সোনালি হাসিতে দিন শুরু  করে বাংলাদেশ। দুপুর নাগাদ আরচারদের সেই হাসি আরও চওড়া হয়েছে। পুরুষদের দলগত রিকার্ভে  রোমান সানা, হাকিম আহমেদ রুবেল ও তামিল ইসলাম ৫-৩ সেটে শ্রীলঙ্কান আরচাদের হারানোয় সাহস বেড়ে যায় অন্যদের। পরের ইভেন্টেগুলোতে বাংলাদেশের আরচারদের সঙ্গে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বিতাই গড়তে পারেননি অন্যরা। মেয়েদের দলগত রিকার্ভে ইতি খাতুন, মেহনাজ আক্তার মনিরা ও বিউটি রায়ের দল লঙ্কানদের ৬-০ সেটে উড়িয়ে সোনা জেতেন। মিশ্র রিকার্ভে দলটিতে ছিলেন রোমান সানা ও ইতি খাতুন। তারা হারান ভুটানকে ৬-২ সেটে। কম্পাউন্ড ইভেন্টে ছেলেদের দল জিতেছে ভুটানের বিপক্ষে। আশিকুজ্জামান, সোহেল রানা ও অসিম কুমার দাসের দল জিতেছে ২২৬-২১৩ পয়েন্টের ব্যবধানে। একই ইভেন্টে মেয়েরা জিতেছে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। মেয়েদের দলটিতে ছিলেন সুস্মিতা বণিক, শ্যামলি রায় ও সোমা বিশ্বাস। আরচারিতে দিনের শেষ ইভেন্ট কম্পাউন্ড মিশ্র দ্বৈতে সাফল্যের ধারাবাহিকতা ধরে রাখেন জুয়েল রানা- সুম্মিতা বণিক জুটি। স্বাগতিক নেপালের জুটিকে তারা হারান ১৪৮-১৪০ ব্যবধানে। সব মিলিয়ে দিনের ৬ ইভেন্টের ৬টিতেই সেরা বাংলাদেশ। আজ এককের চারটি ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশের সামনে সুযোগ আছে ১০ ইভেন্টের সবগুলো থেকে সোনার পদক জয়ের। আজ একই ভেন্যুতে রিকার্ভ পুরুষ এককে বাংলাদেশের রোমান সানার প্রতিপক্ষ ভুটানের কিনলে শেরিং। মেয়েদের রিকার্ভ এককে ইতি খাতুন সোনা পদকের লড়াই করবেন ভুটানের সুনাম দেমার বিপক্ষে। ছেলেদের কম্পাউন্ড এককে সোহেল রানার প্রতিপক্ষ ভুটানের তানদিন দর্জি। মেয়েদের কম্পাউন্ড এককে সোমা বিশ্বাস সোনা জয়ের মঞ্চে লড়বেন শ্রীলঙ্কার করুনারত্নের বিপক্ষে। এককের ফাইনালে আগে রোমান সানা বলেন, আল্লাহ পাকের শুকরিয়া আদায় করছি যে গোল্ড অর্জন করতে পেরেছি। সবথেকে বড় কথা হচ্ছে যে, ২০১৬ সালে এসএ গেমসে বড় একটা ইনজুরির কারণে খেলতে আসতে পারিনি। তখন অনেক দুঃখ লেগেছিল। তো এবার খেলতে আসতে পেরেছি। আজ (গতকাল) দিনের শুরুটাও হয়েছে সোনা জিতে। দলগত ও মিশ্র দলগত মিলিয়ে আজ দুটো গোল্ড পেয়েছি, ধরতে গেলে এটা আমার ক্যারিয়ারের সেরা অর্জন। আশা করছি আগামীকাল এককের ইভেন্ট আছে। আল্লাহ পাক সহায় থাকলে ইনশাল্লাহ কালকেও জিততে পারবো। জোড়া স্বর্ণ জিতলেও এসএ গেমসের এই অর্জনকে ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপের ব্রোঞ্জের চেয়ে এগিয়ে রাখতে চান না রোমান সানা। তিনি বলেন, ‘আগে আমরা আমরা বড় কোনো টুর্নামেন্টে পদক জিততাম না। এটাই আমাদের কাছে সবচেয়ে বড় আসর ছিল। বাংলাদেশ খেলাধুলার দিক থেকে অনেক এগিয়ে গেছে। আসলে ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপ হচ্ছে অলিম্পিক লেভেলের। বিশ্বে বড় যদি কোনো গেমস থাকে, তাহলে সেটা অলিম্পিক। সেখানে কোয়ালিফাই করা আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় অর্জন। এবং আমি মনে করি বাংলাদেশে যত গেমস আছে, তার মধ্যে বড় অর্জন ওটা।’ আরচারিতে এর আগে দু’বার বাংলাদেশ অংশ নিলেও স্বর্ণের দেখা পেয়েছে এবারই প্রথম। ভারত না থাকায় কাজটি সহজ হয়েছে কিনা জানতে চাইলে রোমান বলেন, ‘আমরা কিন্তু ভারতের চেয়ে পিছিয়ে নেই। টিম র‌্যাঙ্কিংয়ে আমরা ভারতের চেয়ে এগিেয় আছি। তাছাড়া এখানে যারা এসেছে ভারোও ওয়ার্ল্ড লেভেলে অনেক ভালো করছে। সুতরাং তাদের থাকা না থাকায় কিছু যায় আসে না।’ আরচারি অসাধারণ সাফল্যের দিনে ক্রিকেট থেকেও সোনার পদক এনে দিয়েছেন বাংলাদেশের মেয়েরা। আগের ৭ দিন মিলিয়ে এসেছিল ৭ সোনা। গতকাল এক দিনেই এলো আরো ৭টি। ১৪টি সোনা জিতে বাংলাদেশ ছুঁয়েছে নতুন উচ্চতা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর