× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার

কুমিল্লা-রংপুরে বিদেশি অধিনায়কের চ্যালেঞ্জ

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, বুধবার, ৯:১৫

বিপিএলের মাঠের লড়াইয়ের প্রথম দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মুখোমুখি হচ্ছে রংপুর রেঞ্জার্স ও কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স। এই দুটি দল ছিল বিসিবির মালিকানায়। কিন্তু শেষ মুহূর্তে গতকাল রংপুরের স্পন্সর হিসেবে দলটির নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড। দলটির অধিনায়ক হিসেবে আফগান তারকা মোহাম্মদ নবীর নাম ঘোষণা করা হয়েছে। অন্যদিকে বিসিবির দল কুমিল্লার নেতৃত্ব তুলে দেয়া হয়েছে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার দাসুন শানাকার হাতে। কারণ দলের দেশীয় ক্রিকেটারদের মধ্যে সৌম্য সরকার ও সাব্বির রহমান ছাড়া নেতৃত্ব দিতে পারে এমন কেউ নেই। আজ সন্ধ্যায় বিপিএলের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবেন দুই বিদেশি অধিনায়ক। বাংলাদেশে খেলার অভিজ্ঞতার কারণে বেশ আত্মবিশ্বাসী মোহাম্মদ নবী।
তিনি বলেন, ‘রংপুর রেঞ্জার্সের অধিনায়ক হিসেবে আমার ওপর আস্থা রাখায় আমি টিম ম্যানেজমেন্টকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। একটি উইনিং কম্বিনেশন তৈরিতে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো। মেধাবী বাংলাদেশি ও বিদেশিদের নিয়ে আমরা একটি ভারসাম্যপূর্ণ দল করেছি। এই লীগে ভালো ফলাফলের জন্য আমরা আমাদের সেরাটাই দেবো। প্রতিপক্ষকে জানতে অল্প সময় পেয়েছি। তবে বাংলাদেশ আমার জন্য নতুন কিছু নয়। ৮-৯ বছর ধরে আমি প্রতি বছরই খেলছি এখানে। এখানকার কন্ডিশন আমার বেশ ভালো জানা আছে।’
শক্তিশালী পেস বোলিং ইউনিট পেয়েছেন নবী। তার দলে বাংলাদেশের দুই সেরা পেসার তাসকিন আহমেদ ও মোস্তাফিজুর রহমান তো আছেনই, আছেন পাক পেসার জুনাইদ খানও। নবী বলেন, ‘হ্যাঁ, এটা আমাদের বোলিং সাইডের জন্য একটি ভালো সুবিধা। ওরা থাকায় আমাদের দল একটি ভালো শক্তিশালী বোলিং ইউনিট হিসেবে খেলতে পারবে। জুনাইদ খান আছে সেও খুবই ভালো। এটা একটি শক্তিশালী বোলিং সাইড। আমরা কিছু রান বোর্ডে তুলতে চেষ্টা করবো এবং বোলিংটা ভালো করতে চেষ্টা করবো।’ তবে বেশ কিছুদিন ধরে ফর্মে নেই মোস্তাফিজ। কিন্তু সেটি নিয়ে চিন্তিত নন অধিনায়ক। তিনি বলেন, ‘মোস্তাফিজ ফর্মে নেই, এটা আমাদের জন্য ভাবনার কোনো কারণই না। সে ফর্মে ফিরবে। আমরা আসলে একটি ইউনিট বা একটি দল হিসেবে খেলবো। আমরা তার সমস্যা নিয়ে আলোচনা করবো। প্রতিটি ম্যাচের জন্যই আমাদের আলাদা পরিকল্পনা থাকবে। আমরা সবাই একসাথে কাজ করবো।’
কুমিল্লার অধিনায়ক শানাকা মুখোমুখি হননি সংবাদমাধ্যমের। তবে দলের প্রতিনিধি হয়ে ম্যাচের আগে জাতীয় দলের পেসার আল আমিন হোসেন বলেন, ‘অবশ্যই ভালো করতে চাই। লক্ষ্য চ্যাম্পিয়ন হওয়া।’ দলের অনেক সদস্যই এখনো যোগ দিতে পারেননি। এ নিয়ে আল আমিন বলেন, ‘আমাদের দলের অনেকেই এসএ গেমস খেলতে গেছে। গোল্ড জিতেছে। ওরা ফিরে যোগ দেবে দলের সঙ্গে। ওরা তো খেলার মধ্যেই ছিল। ওখানে আমাদের ৪ জন ক্রিকেটার আছে। ওরা টি-টোয়েন্টি খেলার মধ্যেই আছে। বরং আমরাই এগিয়ে আছি। আমাদের দল অনেক ভারসাম্যপূর্ণ। অবশ্যই মাঠে প্রতিযোগিতামূলক একটা ম্যাচ হবে।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর