× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৮ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার

বরুড়ায় হুমকিতে কোটি টাকার সড়ক

বাংলারজমিন

বরুড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি | ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, রবিবার, ৮:১৯

বরুড়া উপজেলাব্যাপী স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এবং সড়ক ও জনপথ  অধিদপ্তরের কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত সড়কগুলো শুধুমাত্র মাছের (ফিসারি’র) কারণে চরম হুমকিতে পড়েছে। গণপ্রজাতন্ত্রী সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার  ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বরুড়া উপজেলায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এবং সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের অধীনে রাস্তা ঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন হয়। বরুড়া-আড্ডা সড়ক, বরুড়া-সিঙ্গুর, বরুড়া-ভাউকসার, ধনিম্বর-বিজড়া, বরুড়া-বাতাইছড়ি হয়ে সড়কসহ প্রায় সব সড়কেই রাস্তার পাশে মৎস্য খামারগুলোর কারণে রাস্তা নিয়মিত ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সরজমিন দেখা গেছে প্রায় প্রত্যেকটি ফিসারির মালিক তাদের ফিসারির তিন পাশ অত্যন্ত মজবুত করে বাঁধ দেয় কিন্তু রাস্তার পাশের অংশে কখোনই বাঁধ দেয় না। এ কারণে মৎস্য ফিসারির মাছ রাস্তার পাশের নিচের অংশ খেয়ে গর্তের সৃষ্টি করার ফলে রাস্তা আস্তে আস্তে ভেঙে ফিসারির গর্ভে চলে যায়। এ ব্যপারে স্থানীয় জনসাধারণের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় স্থানীয়পর্যায়ে জনপ্রতিনিধি গণ এ ব্যাপারে নজরদারি করেন না, প্রত্যেক জনপ্রতিনিধি তাদের স্ব-স্ব এলাকায় এভাবে গড়ে উঠা মৎস্য ফিসারিগুলোকে যদি নির্দিষ্ট কোনো বিধিমালা তৈরি করে দেয় এবং নিয়মিত দেখাশোনা করে তাহলে এ সমস্যার সমাধান অনেকাংশে করা সম্ভব। উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা কেএম মহিউদ্দিন বলেন, মৎস্য অফিসের পক্ষ থেকে আমরা চাষিদের সচেতনতামূলক বৈঠক করেছি। প্রান্তিক চাষিদের সঙ্গে আগামী দিনেও এই কার্যক্রম চলমান থাকবে।
উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) ইঞ্জিনিয়ার ফুয়াদ আহছান বলেন, আমরা প্রায় প্রতিটি উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটিতে বিষয়টি উপস্থাপন করছি। উপজেলার সাধারণ মানুষ যতদিন সচেতন না হয় ততদিন এ সমস্যা থেকে উত্তরণের সুযোগ নেই। তবে যদি তৃণমূলের জনপ্রতিনিধিগণ এলাকার মৎস্য চাষি কৃষকদের সঙ্গে নিয়মিত আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি বোঝাতে পরে তাহলে এ সমস্যার সমাধান করা সম্ভব।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর