× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৭ জানুয়ারি ২০২০, সোমবার

নাগরিকত্ব আইন নিয়ে ভাবার আহ্বান নীতিশ কুমারের

এক্সক্লুসিভ

মানবজমিন ডেস্ক | ১৪ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার, ৭:৫৭

নাগরিকত্ব সংশোধন আইন (সিএএ) নিয়ে নতুন করে ভাবতে প্রকাশ্যে আহ্বান জানিয়েছেন ভারতে ক্ষমতাসীন বিজেপি’র মিত্র বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার। বিহার বিধানসভা এই আইন নিয়ে বিতর্ক করতে উন্মুক্ত বলে জানিয়েছেন তিনি। এর মধ্যদিয়ে প্রথমবারের মতো বিতর্কিত এই আইনের বিষয়ে তার আপত্তির ইঙ্গিত দিলেন। ভারতের পার্লামেন্টে এই আইনটি করার সময় সরকারকে সমর্থন দিয়েছিল তার দল জনতা দল (ইউনাইটেড)। ওদিকে জাতীয় নাগরিকপঞ্জীর (এনআরসি) বিষয়ে নীতিশ কুমার বলেছেন, বিহারে এটা বাস্তবায়নের প্রশ্নই ওঠে না। এটা বাস্তবায়নের কোনো প্রয়োজনই নেই। এর আগেও তিনি বিহারে এনআরসি করা হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন। তবে প্রথমবারের মতো তিনি বিধানসভায় তা জোর দিয়ে বলেছেন।
ফলে তার এ বক্তব্য এখন আনুষ্ঠানিক বা অফিসিয়াল। বিহার বিধানসভার একদিনের বিশেষ অধিবেশন ডাকা হয়েছিল কোটা সংস্কার অনুমোদন ইস্যুতে। সেখানে সাবেক মুখ্যমন্ত্রী লালু প্রসাদ যাদবের রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি) ও বামেরা ধর্মভিত্তিক নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে আক্রমণ করে বক্তব্য দেয়ার পর নীতিশ কুমার তার অবস্থান পরিষ্কার করেন। এরপর তিনি বিধানসভায় বলেন, সিএএ নিয়ে একটি বিতর্ক হতে পারে। যদি  লোকজন চায় তাহলে বিধানসভায় তা নিয়ে আলোচনা হতে পারে। এনআরসি’র ক্ষেত্রে এনআরসি করার কোনো প্রশ্নই ওঠে না। এর পক্ষে সাফাই গাওয়ার কিছু নেই।
সিএএ’র প্রতি জাতীয় পার্লামেন্টে সমর্থন দেয়ার পর নীতিশ কুমারের এই মন্তব্যকে বড় ধরনের পশ্চাদ্ধাবন হিসেবে দেখা হচ্ছে। এই আইনটিকে কেন্দ্র করে ভারতের বিভিন্ন স্থানে ছাত্র, অধিকারকর্মী ও রাজনৈতিক দলগুলো বিক্ষোভ করেছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন এনডিটিভি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর