× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২১ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার

সিগন্যালের অপেক্ষায় সিলেট জেলা বিএনপি

শেষের পাতা

ওয়েছ খছরু, সিলেট থেকে | ১৪ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার, ৯:১৫

খুব দ্রুত ভেঙে দেয়া হচ্ছে সিলেট বিএনপির ১৭টি ইউনিট। গঠন করা হবে নতুন আহ্বায়ক কমিটি। আগামী দুই মাসের মধ্যে সম্মেলন করে নতুন কমিটি গঠন করা হবে। কেন্দ্রের নির্দেশে এরই মধ্যে সাংগঠনিক সফর শেষ করেছেন সিলেট বিএনপি’র আহ্বায়ক কমিটির নেতারা। কেন্দ্রের কাছে পাঠানো হয়েছে আহ্বায়ক কমিটিগুলোর খসড়া। কেন্দ্রের গ্রিন সিগন্যাল পেলেই ভেঙে দেয়া হবে পুরাতন কমিটি। ঘোষনা করা হবে আহবায়ক কমিটি। সিলেট বিএনপির নেতারা জানিয়েছেন- আগামী ৪-৫ দিনের মধ্যে তারা নতুন আহবায়ক কমিটির নাম ঘোষণা করতে পারবেন।


এখন তারা কেন্দ্রের সিগন্যালের অপেক্ষায় রয়েছেন। সম্মেলনের পর কাউন্সিলরদের ভোটে গঠন করা হয়েছিলো সিলেট জেলা বিএনপির কমিটি। প্রায় আড়াই বছর আগে সাবেক কমিটি গঠনের পর বিএনপির ভেতরে দ্বিধা বিভক্তি অনেকটা মিটে যায়। গত বছরের এপ্রিলে পূর্বের কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে যায়। এ কারণে কেন্দ্রীয় নেতারা অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে জেলা বিএনপির নতুন আহবায়ক কমিটি গঠন করে। এই কমিটির আহবায়ক করা হয় সিলেট জেলা বিএনপি নেতা কামরুল হুদা জায়গীরদারকে। ২৫ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটিতে সাবেক ছাত্রনেতা আধিক্য থাকে। নতুন মুখও আছেন আহবায়ক কমিটিতে। এরপরও আহবায়ক কমিটি নিয়ে কিছুটা ক্ষোভ ছিলো।

তবে- দলের সিলেটি চার উপদেষ্টারা সক্রিয় হওয়ার পর সেই ক্ষোভ কমে যায়। এরপরও সবার মতামতের ভিত্তিতে জেলা বিএনপি তাদের কর্ম পরিকল্পনা চূড়ান্ত করে। এই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে প্রথমেই সিলেট বিএনপির অধিভুক্ত ১৭টি ইউনিটকে ভেঙে নতুন করে সাজানোর কাজ শুরু করা হয়। জেলার নেতারা সিলেটে বৈঠক করে আহবায়কদের নাম চূড়ান্ত করেন। কিন্তু এতে তৃণমূলে ক্ষোভ দেখা দেয়ার আশঙ্কায় ওই সময় আহবায়ক কমিটির আহবায়কদের নাম প্রকাশ করা হয়নি। সিদ্বান্ত হয়- প্রতিটি ইউনিটে বর্ধিত সভার পর পূর্ণাঙ্গ আহবায়ক কমিটি গঠন করা হবে। সেই হিসেবে নভেম্বর থেকে সিলেট জেলা বিএনপির নেতারা বর্ধিত সভার আয়োজন শুরু করেন। গত সপ্তাহে তাদের সেই কার্যক্রমেরও সমাপ্তি ঘটেছে। সিলেট জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য আব্দুল আহাদ খান জামাল মানবজমিনকে জানিয়েছেন- ১৩ উপজেলা ও ৪টি পৌরসভায় তারা ইতিমধ্যে বর্ধিত সভা করেছেন। একই সঙ্গে তারা প্রতিটি ইউনিটের আহবায়ক কমিটির নামও চূড়ান্ত করেন। প্রতিটি ইউনিট যাতে সার্বজনীন হয় সে বিষয়ে তাদের চেষ্টার কোনো কমতি ছিলো না। সবাইকে নিয়ে তারা আহবায়ক কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া সমাপ্ত করেছেন। এদিকে- পূর্বের খসড়ায় থাকা আহবায়কদের কেউ কেউ বাদ পড়ে নতুন সংযোজন করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন নেতারা।

তারা জানান- গোয়াইনঘাট, জকিগঞ্জ, বিয়ানীবাজার সহ কয়েকটি ইউনিট নিয়ে নতুন করে ভাবনা এসেছে। ফলে বিষয়টি কেন্দ্রের মতামতের উপর ছেড়ে দেয়া হয়েছে। কেন্দ্র থেকে অনুমতি পেলে তারা নতুন আহবায়ক কমিটি ঘোষনা করবেন। এদিকে, নবগঠিত বিশ্বনাথ পৌরসভাকে নিজেদের ইউনিটের মর্যাদা দিতে কেন্দ্রীয় বিএনপিকে চিঠি পাঠিয়েছে সিলেট জেলা বিএনপি। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সভায় এই পৌরসভাকে ইউনিটের মর্যাদা দেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। ইউনিটের মর্যাদা পেয়ে গেলে বিশ্বনাথ পৌরসভায় কমিটি গঠন করতে বিশেষ সভা করা হবে। বিএনপি নেতারা জানান- পূর্বের বৈঠকে আহবায়কদের নামের একটি খসড়া তারা চূড়ান্ত করেছিলেন। তবে- সেই খসড়া প্রকাশ করা হয়নি। কিছুটা কাটছাট হতে পারে। পূর্বের খসড়া তালিকায় ছিলেন- জৈন্তাপুর উপজেলায় এ বি এম জাকারিয়া, গোয়াইনঘাটে আব্দুল হেকিম, দক্ষিণ সুরমায় সিরাজুল ইসলাম, বালাগঞ্জে আব্দুর রশিদ, কোম্পানীগঞ্জে মনাফ হাজী, বিশ্বনাথে গৌছ খান, ওসমানীনগরে ফরিদ আহমদ, বিয়ানীবাজারে এডভোকেট জুবায়ের আহমদ, বিয়ানীবাজার পৌরসভায় নুরুল হোসেন বাবুল, জকিগঞ্জ পৌরসভায় ইকবাল আহমদ, জকিগঞ্জ উপজেলায় আখতার হোসেন রাজু, কানাইঘাট উপজেলায় আব্বাস উদ্দিন, কানাইঘাট পৌরসভায় আবিদুর রহমান, সদর উপজেলায় তারেক কালাম, ফেঞ্চুগঞ্জে ইফতেখার উদ্দিন ফেদল, গোলাপগঞ্জ উপজেলায় আব্দুল গফুর ও গোলাপগঞ্জ পৌরসভায় হাসান আহমদ।

বিএনপি নেতারা জানিয়েছেন, জেলা বিএনপির আওতাধীন সকল ইউনিটে একজন আহবায়ক ও ২০ জন সদস্য তথা ২১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি দেয়া হবে। সিলেট জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সিনিয়র সদস্য আলী আহমদ জানিয়েছেন- এই সপ্তাহের মধ্যে সকল শাখায় আহবায়ক কমিটি দেয়ার বিষয়ে আমরা আশাবাদী। প্রতিটি শাখায় ২১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি হবে। তারা তাদের আওতাধীন সব শাখায় কমিটি গঠন করবে। এরপর উপজেলা ও পৌর শাখাগুলোয় কমিটি গঠন করা হবে। পরবর্তীতে আমরা জেলার সম্মেলন আয়োজন করবো।’ তিনি বলেন- নতুন করে বিশ্বনাথ পৌরসভা ইউনিট অনুমতি পেলে সেটিরও আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর