× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ঢাকা সিটি নির্বাচন- ২০২০ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২১ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার

‘ভুলে’ ৮টি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান নষ্ট করলো ইসরাইলি বিমানবাহিনী

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৪ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার, ১০:৫৭

নিজেদের ৮টি এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের বড় ধরণের ক্ষতির জন্য ভুল স্বীকার করেছে ইসরাইলের বিমান বাহিনী। গত সপ্তাহে ইসরাইলজুড়ে ব্যাপক বৃষ্টিপাত হয়। এতে দেশটির হাতজর বিমানঘাঁটিতে অন্তত ৫ কোটি লিটার পানি জমে যায়। কিন্তু সেখানে থাকা ভূগর্ভস্থ হ্যাঙ্গার থেকে কোনো যুদ্ধবিমানকে সরাতে ভুলে যায় বিমান বাহিনীর দায়িত্বে থাকা ইউনিট। এতে পানিতে ডুবে অন্তত আটটি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বৃষ্টিপাতের পরিমাণ এতই বেশি ছিলো যে, ভূগর্ভস্থ অংশগুলো ডুবে বিমানবন্দরের রানওয়েও প্লাবিত হয়েছে। মাত্র আধা ঘন্টা বৃষ্টিতে এত ক্ষতি হয়ে যাবে সেটি বুঝতে দেরি করে ফেলে ইসরাইলি বিমান বাহিনী। হ্যাঙ্গারগুলো অন্তত দেড় মিটার পানির নিচে তলিয়ে যায়।
সেখানে থাকা মেকানিকরাও আটকে পড়েছিলেন। পরে অবশ্য তাদেরকে উদ্ধার করা হয়। জেরুজালেম পোস্ট জানিয়েছে, ওই ঘটনায় মোট আটটি এফ-১৬ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে পাঁচটির ক্ষতি সামান্য। তবে তিনটি এফ-১৬ বিমানে বড় ধরণের ক্ষতি হয়েছে।

ইসরাইলি বিমানবাহিনী টুইটারে দোষ স্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছে। এতে তারা বলে, আমরা বিমানগুলো না সরিয়ে ভুল করেছিলাম। অবশ্যই ভুল নিয়ে তদন্ত চলবে। ভবিষ্যতে যাতে এ ধরণের ঘটনা না ঘটে সে জন্য আমরা ব্যবস্থা নেবো। ঘটনার পর ঘাঁটিটির স্বাভাবিক কর্মকাণ্ড পুনরায় শুরু হয়েছে। প্রতিটি বিমান মেরামতের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আশা প্রকাশ করা হয়েছে যে, আগামি সপ্তাহের মধ্যেই সব আবারো সার্ভিসে ফিরে আসবে। বিমানবাহিনী জানিয়েছে, যদিও যুদ্ধবিমানগুলো ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। তারপরেও এর ফলে বিমানবাহিনীর দক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার কিছু নেই। প্রাথমিকভাবে জানানো হয়, ওই ঘটনায় মোট ক্ষতির পরিমান কয়েক মিলিয়ন শেকেল। তবে ব্যয় আরো কম হবে বলে এক উর্ধতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

গত সপ্তাহে বড় ধরণের বৃষ্টিপাত হয় ইসরাইলে। এতে বেশ কয়েকজন মারা যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে দেশটিতে। দেশটির পুলিশ ও দমকলকর্মীরা বন্যায় আক্রান্ত মানুষদের উদ্ধারে দেশব্যাপী অভিযান পরিচালনা করছে। আইডিএফ সেনা বাহিনী এবং হোমফ্রন্ট কমান্ডের পাশাপাশি আর্মার্ড কর্পস, আর্টিলারি, পদাতিক এবং নৌবাহিনীকে উদ্ধার অভিযানে মোতায়েন করা হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর