× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেট
ঢাকা, ২৮ মার্চ ২০২০, শনিবার

এনপিআর নিয়ে বৈঠকে সব রাজ্যের পরামর্শ নেয়া হবে

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৭ জানুয়ারি ২০২০, শুক্রবার, ১২:০৮

জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনপিআর) নিয়ে দেশের সবক’টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের পরামর্শ চাওয়া হবে জানিয়ে আজ শুক্রবার নয়া দিল্লিতে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় একটি বৈঠক ডেকেছে। জানা গেছে, কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এনপিআর প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য আলোচনা হবে বৈঠকে। কোন পদ্ধতিতে নিখুঁতভাবে তৈরি করা যাবে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি  বা ন্যাশনাল পপুলেশন রেজিস্টার, তা রাজ্যগুলির প্রতিনিধিদের থেকে জানতে চাওয়া হবে। বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গ ছাড়া বাকি সব রাজ্যই বৈঠকে হাজির হওয়ার বিষয়ে সম্মতি দিয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই বৈঠক বয়কটের ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি ইতিমধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন, রাজ্যে এনপিআরের কাজ শুরু করতে দেয়া হবে না। এ ব্যাপারে রাজ্য সরকার একটি নির্দেশিকাও জারি করেছে। কেন্দ্রীয় সরকারের ডাকা বৈঠকের আগের সূচিতে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে এনপিআর নিয়ে তাদের অভিমতটুকুই শুধু জানানোর কথা ছিল।


কী ভাবে কেন্দ্র পুরো এনপিআর-পর্বটা পরিচালনা করতে চাইছে, সব রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মুখ্যসচিব ও আমলাদের সামনে তা ব্যাখ্যা করার কথা ছিল রেজিস্ট্রার জেনারেল অব ইন্ডিয়ার। আগের সূচিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বা প্রতিমন্ত্রীরর বক্তব্য রাখার উল্লেখও ছিল না। রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের পরামর্শদানেরও উল্লেখ ছিল না বলেই জানা গেছে। নতুন সূচিতে প্রতিটি রাজ্যকে তাদের বক্তব্য রাখার সুযোগ দেয়া হবে। কোন কোন বিষয়ে আপত্তি, তা সরাসরি কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতিনিধিদের জানাতে পারবেন বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যসচিব ও তাদের সহযোগী আমলারা। এনপিআর নিয়ে তাদের যাবতীয় প্রশ্নের উত্তর দেবেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই। তাকে সাহায্য করতে উপস্থিত থাকবেন স্বরাষ্ট্র সচিব অজয় কুমার ভাল্লা এবং রেজিস্ট্রার জেনারেল অব ইন্ডিয়া। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আজকের বৈঠকে কেন্দ্রীয় সরকার এনপিআর সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয়ের ব্যাখ্যা দেবে এবং ২০২১-এর জনগণনার আগে এই পদ্ধতি পালনের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরবে। রাজনৈতিক মহলের মতে, কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতিনিধিদের বিভিন্ন সময়ে দেয়া তথ্যে বিভ্রান্তিই তৈরি হয়েছে। আজকের বৈঠকে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে সব বিভ্রান্তি দূর করার চেষ্টা হবে বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষক মহল।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর