× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শনিবার

চোখ হারিয়েও বিচার পাচ্ছেন না শাহে আলম

বাংলারজমিন

লালমোহন (ভোলা) প্রতিনিধি | ২২ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার, ৮:২২

ভোলার লালমোহনে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাচাতো ভাইয়ের রডের আঘাতে চোখ হারিয়েও বিচার পাচ্ছেন না মো. শাহে আলম (৪০) নামের এক যুবক। মঙ্গলবার উপজেলার ফরাজগঞ্জ ইউনিয়নের বেসরকারি এলাকার ছৈয়াল বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার ৭ দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত সুষ্ঠু বিচার পাচ্ছে না পরিবারটি। জানা যায়, শাহে আলমের ছোট ভাই বশিরের সঙ্গে তার চাচাতো ভাই শরিফের কথাকাটাকাটি ও ঝগড়া হয়। এরপর স্থানীয়রা বিষয়টি মীমাংসা করে দেয়। তবে ঘটনার দিন রাতে শরিফের বড় ভাই বিল্লাল বাড়িতে এসে শাহে আলমকে ভাত খাওয়া অবস্থায় ঘর থেকে ডেকে নিয়ে অতর্কিত হামলা করে। এতে শাহে আলমের চোখে প্রচণ্ড জখম হয়।
তখন গুরুতর আহত অবস্থায় শাহে আলমকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চোখের অবস্থা খারাপ হওয়ায় কর্তব্যরত ডাক্তার চোখ উপড়ে ফেলে।
চিকিৎসা শেষে রোববার রাতে বাড়ি ফিরে শাহে আলম। তবে ঘটনার ৭ দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত সুষ্ঠু বিচার পায়নি শাহে আলমের পরিবার। এ ব্যাপারে শাহে আলম বলেন, থানায় অভিযোগ করতে যাওয়ার কথা বললে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম মৃধা ও সদস্য নূরনবীসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা এ ঘটনার বিচার করবেন বলেছেন। তবে এখন পর্যন্ত কোনো বিচার পায়নি। তাই প্রশাসনের কাছে এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার কামনা করেছেন।
অভিযুক্ত বিল্লালের কাছে বিষয়টি জানার জন্য কয়েকবার কল করলেও রিসিভ না করায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।
ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম মৃধা বলেন, আমার কাছে দুই পক্ষই এসেছে। আমি স্থানীয়দের সঙ্গে নিয়ে এর ফয়সালা করে দেবো।
লালমোহন থানার ওসি মীর খায়রুল কবীর বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর