× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার
বাংলাদেশ-বুরুন্ডি সেমিফাইনাল আজ

জেমির প্রেরণা ‘শ্রীলঙ্কা ম্যাচ’

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ২৩ জানুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৯:০৩

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আজ শক্তিশালী বুরুন্ডির মুখোমুখি হচ্ছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। গ্রুপ পর্বের দুই ম্যাচে প্রতিপক্ষের জালে ৭ বার বল পাঠায় আফ্রিকার দল বুরুন্ডি। বাংলাদেশ প্রথম ম্যাচে ফিলিস্তিনের কাছে ২-০ গোলে হেরে দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ৩-০ গোলে উড়িয়ে ওঠে সেমিতে। আর বাংলাদেশ দলের বৃটিশ কোচ জেমি ডে গতকাল বলেন, ‘শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আমরা খুব ভালো খেলেছি। এই ম্যাচ থেকে আমরা পরবর্তী ম্যাচের জন্য আত্মবিশ্বাস নিতে পারি। ম্যাচটা কঠিন হবে। ওরা দারুণ আক্রমণাত্মক দল। শারীরিক দিক থেকেও বড়সড় আর শক্তিশালী।
আমাদের লড়তে হবে। ওদের জন্য ম্যাচটা কঠিন করে তুলতে হবে। আমরা পূর্ণ আত্মবিশ্বাস নিয়েই বুরুন্ডির মোকবিলা করবো। ওরা আমাদের চেয়ে র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে। কিন্তু আমরা খেলবো ঘরের মাঠের সুবিধা নিয়ে। সেমিফাইনালে খেলার জন্য মুখিয়ে আছি। একমাত্র লক্ষ্য ফাইনালে যাওয়া। যা হবে দারুণ অর্জন।’ অন্যদিকে বুরুন্ডির কোচ জসলিন বিফুসা বলেন, ‘সেমিফাইনালের প্রস্তুতি খুবই ভাল হয়েছে। বাংলাদেশ ভালো দল। সেরাটা খেলতে পারলে অবশ্যই আমরা ফাইনালে যাবো। কারণ এমন অনেক টুর্নামেন্টে খেলার অভিজ্ঞতা আমাদের রয়েছে। মরিশাসের বিপক্ষে ৪-২-৩-১ এবং সিশেলসের বিপক্ষে ৩-৫-২-১ ফর্মেশনে খেলেছি। তাই স্বাভাবতই বাংলাদেশের বিপক্ষে ভিন্ন ফরমেশনে নামবো। কারণ শ্রীলংকার বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচ দেখে মনে হয়েছে তারা অনেক শক্তিশালী।’ অধিনায়ক তাম্বে আমিশি বলেন, ‘সেমিফাইনালে ওঠাই প্রমান করে দু’টি দলই শক্তিশালী। ম্যাচটা সহজ হবে না। বাংলাদেশ ভালো দল।’ ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ১৫১ নম্বরে থাকা বুরুন্ডিকে সেমিফাইনালে তুলেছেন ফরোয়ার্ড এনশিমিরিমানা জসপিন। হ্যাটট্রিকসহ ৪ গোল নিয়ে এখন পর্যন্ত সর্বাধিক গোলদাতা তিনি। তাকে সামলানো বড় চ্যালেঞ্জ বাংলাদেশি ডিফেন্ডারদের জন্য। কিন্তু অভিজ্ঞ দুই ডিফেন্ডার ইয়াসিন খান ও তপু বর্মণকে আজ পাচ্ছেন না জেমি। জ্বরের কারণে আগেই ছিটকে যান ইয়াসিন। কার্ডের কারণে খেলতে পারবেন না তপু। এমতাবস্থায় তরুণদের ওপর ভরসা করছেন কোচ জেমি ডে। তিনি বলেন, ‘আমাদের পরিস্থিতি মেনে নিতে হবে। প্রতিকূলতার সঙ্গে খাপ খাওয়াতে হবে নিজেদের। রক্ষণে যেই থাকুক, তার লক্ষ্য থাকবে ক্লিনশিট রাখা। তবে আমাদের বিকল্প খেলোয়াড় আছে। ডিফেন্ডারদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে। তাদের শক্তিশালী, ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। পরস্পরের মাঝে ভালো বোঝাপড়া থাকতে হবে। কোনো চাপ নেই। কিন্তু আমাদের ভালোভাবে ডিফেন্ড করতে হবে। কারণ ওরা আক্রমণাত্মক দল। শ্রীলঙ্কা ম্যাচ থেকে বুরুন্ডি ম্যাচ ভিন্ন হবে। আমরা শ্রীলঙ্কাকে ৯০ মিনিটেও একটা শট নেয়ার সুযোগ দেইনি। এমনকি ফিলিস্তিনও অন-টার্গেটে কেবল দুটি শট নিতে পেরেছিল। আমাদের ডিফেন্সে সমস্যা নেই। সমস্যা হলো মাঝে মাঝে অসতর্ক হয়ে যাই। এ দিকটা খেয়াল রাখতে হবে।’
বুরুন্ডির বিপক্ষে কাউন্টার অ্যাটাক নির্ভর কৌশল বেছে নিচ্ছেন জেমি। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মতিন মিয়ার দ্বিতীয় গোলটি দুর্দান্ত এক কাউন্টার অ্যাটাক থেকেই পেয়েছিল বাংলাদেশ। জেমি বলেন, ‘আমরা গতি আর কোয়ালিটি কাউন্টার অ্যাটাকে যেতে হবে। এটা করতে পারলে আমাদের সুযোগ থাকবে এবং আশা করি ওদের বিপক্ষে গোল আদায় করে নিতে পারবো। যেমনটি পেরেছি গত ম্যাচে। ওরা সেশেলস, মরিশাসকে গোলের সুযোগ করে দিয়েছে। এটা তাদের একটা দুর্বলতা। কাজেই যখন আমাদের সুযোগ আসবে চেষ্টা করতে হবে গোল আদায় করে নেয়ার। আগামীকাল (আজ) এটাই হবে আমাদের জন্য কি-ফ্যাক্ট।’
বুরুন্ডির বিপক্ষে ম্যাচে জেমি দলে দুই-একটা পরিবর্তন আনার কথা ভাবছেন। সুসংবাদ হলো হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি কাটিয়ে ফিরছেন অধিনায়ক ও মিডফিল্ডার জামাল ভূঁইয়া। যা দলের জন্য অনেক বড় পাওয়া। জামালের চোখে ফাইনালে খেলার স্বপ্ন। তিনি বলেন, ‘আমরা জানি ম্যাচটা কঠিন হবে। আমাদের খুব মনোযোগী এবং ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর