× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শুক্রবার

আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসব শুরু

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ২৫ জানুয়ারি ২০২০, শনিবার, ৯:০৮

শিশুদের জন্য প্রতিবারের মতো এবারও আয়োজন করা হয়েছে আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসবের। গতকাল বিকেলে রাজধানীর শাহবাগের জাতীয় গণগ্রন্থাগার চত্বরে এ উৎসবের উদ্বোধন করেন সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। চিলড্রেন্স ফিল্ম সোসাইটির সভাপতি মুহম্মদ জাফর ইকবালও উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উৎসব উপদেষ্টা পরিষদের চেয়ারম্যান মুস্তাফা মনোয়ার। ‘ফ্রেমে ফ্রেমে আগামীর স্বপ্ন’ স্লোগানের এই চলচ্চিত্র উৎসব চলবে ৩১শে জানুয়ারি পর্যন্ত। উৎসব কর্তৃপক্ষ জানান, বাংলাদেশসহ ৩৯টি দেশের ১৭৯টি শিশুতোষ চলচ্চিত্র দিয়ে সাজানো হয়েছে আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসবের ১৩তম আসরটি। রাজধানীর পাঁচটি ভেন্যুতে প্রদর্শিত হবে এসব চলচ্চিত্র।
শিশু-কিশোরসহ তাদের অভিভাবকরা বিনামূল্যে উপভোগ করতে পারবেন এ উৎসব। ঢাকায় মূল উৎসব কেন্দ্র হচ্ছে জাতীয় গণগ্রন্থাগারের শওকত ওসমান স্মৃতি মিলনায়তন। এখানে প্রদর্শিত হবে ‘ফাদার’ (বাংলাদেশ), ‘অ্যা ট্রিপ টু মাই ফ্রেন্ডস হোম’ (ভারত), ‘বোজি (জামার্নি), ‘হাউ টু চিয়ার্স আপ লনলিনেস’ (ইউক্রেন), ‘ইট’স ক্লোড আপ  দেয়ার’ (ফ্রান্স), ‘ম্যারাডোনা’স লেগ’ (জার্মানি), ‘ওয়ান টু থ্রি’ (সিঙ্গাপুর), ‘দ্য সেভেন চাইনিজ ব্রাদারস’ (স্পেন), ‘অ্যা লিটল গিফট ফর ইউ’ (মেক্সিকো), ‘মুজবালাক’ (কাজাকিস্তান), ‘মাই লিটল প্রিন্স’ (আজারবাইজান), ‘গুড গার্ল’ (ফিনল্যান্ড), ‘স্যাম’স ড্রিম’ (ফ্রান্স), ‘দিপু নাম্বার টু’ (বাংলাদেশ)সহ বেশকিছু সিনেমা। জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তন, শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা, আলিয়ঁস ফ্রঁসেজ  সেন্টার ও গ্যেটে ইনস্টিটিউটে প্রদর্শিত হবে ভিন্ন ভিন্ন চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর পাশাপাশি কর্মশালা ও আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিদিন বেলা ১১টা, দুপুর ২টা, বিকাল ৪টা ও সন্ধ্যা ৬টায় মোট ৪টি সময়ে দর্শনার্থীরা সিনেমাগুলো উপভোগ করতে পারবেন। শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে তিনটি দ্বিতল বাসের ব্যবস্থাও করা হয়েছে। উৎসবের আয়োজক চিলড্রেন্স ফিল্ম  সোসাইটি বাংলাদেশ। জানা গেছে, এবারের উৎসবে মোট চারটি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে সিনেমাটোগ্রাফির ওপর নেহাল কুরাইশি, নির্দেশনার ওপর পিপলু আর খান, ‘সাউন্ড ইন ফিল্ম’-এর ওপর নাহিদ মাসুদ এবং ‘স্টোরি  টেলিং’ বিষয়ক কর্মশালা পরিচালনা করবেন অমিতাভ রেজা। এবারে উৎসবের অন্যতম আকর্ষণীয় বিভাগ হিসেবে থাকছে বাংলাদেশি শিশুদের নির্মিত প্রতিযোগিতা বিভাগ। এ বিভাগে নির্বাচিত ১৮টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে। এর মধ্যে পাঁচটি  সেরা চলচ্চিত্রকে দেয়া হবে বিশেষ পুরস্কার। আর পুরস্কার হিসেবে থাকছে ক্রেস্ট, সার্টিফিকেট ও আর্থিক প্রণোদনা। এছাড়া ১৯ থেকে ২৫ বছর বয়সী তরুণ নির্মাতাদের চলচ্চিত্র নিয়ে থাকছে ‘ইয়ং বাংলাদেশি ট্যালেন্ট’ বিভাগ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর