× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শনিবার
সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

স্বতন্ত্র প্রার্থীকে সমর্থন দেয়ায় হামলা, বৃদ্ধাসহ আহত ৬

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ২৬ জানুয়ারি ২০২০, রবিবার, ৯:২২

 ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৪২ নম্বর ওয়ার্ডে স্বতন্ত্র প্রার্থীকে সমর্থন করায় একই পরিবারের ছয় জনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল সকালে রাজধানীর সেগুনবাগিচাস্থ বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেন ভুক্তভুগী আসাদুল ও তার পরিবার।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, উত্তর সিটি করপোরেশনের নবগঠিত ৪২ নম্বর ওয়ার্ডের (বাড্ডার বেরাইদ) বাসিন্দা তারা। আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে একই ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আইয়ূব আনসার মিন্টু ঘুড়ি প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করছেন। সততা ও যোগ্যতা বিবেচনা করে তার পরিবার মিন্টুকে সমর্থন করে তার নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। এলাকার অনেকেই মিন্টুর পক্ষ নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। যা দেখে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন আওয়ামী লীগের মনোনিত প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম। এজন্য তার বাহিনী দিয়ে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছিলেন।
সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভুগী আসাদুল বলেন, সর্বশেষ গত ২২শে জানুয়ারী রাত ১১ টার সময় জাহাঙ্গীর আলমের সমর্থক সহিবুর রহমান, ফয়সাল, বাদশা, কামাল, তাজ মোহাম্মদ ও নাদিমসহ একদল দুর্বৃত্ত পিস্তল, হকিস্টিক, রড, চাপাতি ও লাঠিসোটা নিয়ে আমার বাড়িতে ঢুকে হামলা চালায়।
তাদের চাপাতি ও হকিস্টিকের আঘাতে আমার ৭৬ বছরের বৃদ্ধা দাদী ফাতেমা বেগম, চাচা মাসুদুর রহমান, আজিজুল হক, ফুফু রুবিনা বেগম, ভাই রিপনসহ ছয় জন গুরুতর আহত হয়েছেন। এর মধ্যে দাদী, চাচা মাসুদ, ফুফু রুবিনা চাপাতির আঘাতে গুরুতর আহত হন। এ ঘটনায় বাড্ডা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেয়া হলেও কোনো সুফল পাচ্ছেন না। যার কারণে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে তার পরিবার। তারা নিজেদের নিরাপত্তাসহ ৪২ নম্বর ওয়ার্ডে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষা নির্বাচনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
যদিও আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেছেন, জমি নিয়ে আসাদুলের চাচার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিলো। তারই সুত্রধরে তাদের পরিবারের মধ্যে হামলার ঘটনা ঘটে। এর সাথে তার কোনো ধরণের সংশ্লিষ্টতা নেই বলে দাবি করেন তিনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর