× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবর
ঢাকা, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, সোমবার

মাল্টায় প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার অর্ধেকের বেশি ট্রাফিক পুলিশ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৫:৪৩

প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ভ’মধ্যসাগরীয় দেশ মাল্টার অর্ধেকেরও বেশি ট্রাফিক পুলিশকে। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গ্রেপ্তার হওয়া ট্রাফিক পুলিশরা অতিরিক্ত সময় কাজ না করেও মিথ্যা দাবি করে এ জন্য অর্থ আদায় করেছিলো। তাদের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ আনা হয়েছে। একসঙ্গে এত সংখ্যক পুলিশকে গ্রেপ্তার করায় হঠাৎ করেই সংকটে পড়েছে মাল্টার ট্রাফিক বিভাগ। তবে দেশটির কর্মকর্তারা এরইমধ্যে পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘোষণা করেছে একটি জরুরি পরিকল্পনা। এটি তাদেরকে সাময়িক সময়ের জন্য স্বল্প পুলিশ দিয়ে রাস্তা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করবে।
মঙ্গলবার দেশটির গাড়ি চালকরা অভিযোগ করেন যে, এদিন তারা রাস্তায় তুলনামূলক কম পুলিশ দেখতে পেয়েছেন। তবে এই ঘাটতি পূরণে এরইমধ্যে ট্রাফিক ইউনিটকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
মাল্টার ট্রাফিক পুলিশে রয়েছেন মোট ৫০ জন। এরমধ্যে ৩০ জনকেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা গত তিন বছর যাবত কয়েকশ ঘন্টা ওভারটাইমের অর্থ তুলেছেন। কিন্তু বাস্তবে তারা ওই সময় ডিউটি করেননি। এছাড়া, এরমধ্যে বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে যে তারা সরকারি বাহনে ব্যবহারের জন্য বরাদ্দকৃত জ্বালানি নিজেদের ব্যক্তিগত বাহনে ব্যবহার করেছেন।
মাল্টার প্রধানমন্ত্রী রবার্ট আবেলা এই গ্রেপ্তারকে স্বাগত জানিয়েছেন। বলেছেন, পুলিশ তার নিজেদের সদস্যদের বিরুদ্ধে তদন্ত করছে এটা অত্যন্ত ভাল বিষয়। এটি প্রমাণ করে যে, আমাদের পুলিশ সত্যিকার অর্থেই কার্যকরি। আবেলা প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন তার মাত্র এক মাস পূর্ন হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পূর্বে তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, ক্ষমতায় এলে মাল্টায় আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করবেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর