× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, শনিবার

নিজ শহর সিলেটে সিক্ত হলেন সাকিব

খেলা

ওয়েছ খছরু, সিলেট থেকে
১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শুক্রবার

শান্ত, কাপালি, রাজিন, তাপসের শহর সিলেটে নতুন নায়ক তানজিম হাসান সাকিব। যুব বিশ্বকাপ জয়ী এই ক্রিকেটারকে নিয়ে এখন সব মহলেই উচ্ছ্বাস। গতকাল যখন সাকিব সিলেটে পৌঁছান তখন বিমানবন্দরে শ’শ মানুষের ঢল। ঢাকা  থেকেই সাকিবের সঙ্গ নেন সিলেট-৩ আসনের এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েস। বিমানের পাশের সিটে বসিয়ে এমপি সামাদ তাকে নিয়ে আসেন সিলেটে।  সিলেটের মাটিতে পা দেয়ার পর তাকে বরণে ব্যস্ত হয়ে পড়েন সবাই। সাকিবকে নিয়ে সেলফি তুলতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন অনেকেই। তানজিম হাসান সাকিব সিলেটের বালাগঞ্জের সন্তান। গতকাল দুপুর দেড়টায় সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে এসে পৌঁছেন সাকিব।
বিশ্ব জয় করে এই প্রথম পুণ্যভূমি সিলেটের মাটিতে রাখেন তিনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- সাকিবের বাবা গৌছ আলী ও মা সেলিনা পারভিনসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্য, আত্মীয়-স্বজন এবং এলাকার মানুষ। পরে সাকিবকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন উপস্থিত সবাই। উপস্থিত ছিলেন সিলেট-৩ আসনের এমপি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েস। বিমানবন্দরের ভিআইপি হল দিয়ে বের হওয়ার পর পিতা-মাতা তাকে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করেন। এ সময় চোখে জল আসে সাকিবের। মাকে জড়িয়ে ধরে থাকেন কিছুক্ষণ। এরপর স্বাভাবিক হলে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত করেন সিলেটের মানুষ। বিমানবন্দর থেকে গাড়ি যোগে সাকিব চলে যান নগরীর পীরমহলাস্থা তার চাচার বাসায়। সেখানে সাকিবের আগমন উপলক্ষে কেক কাটা হয়। সাকিব বলেন- ‘সত্যি একটি অসাধারণ অনুভূতি। আমরা ভারতকে না হারালে বুঝতে পারতাম না যে দেশের মানুষ ক্রিকেটারদের এতো ভালোবাসেন।’ তিনি বলেন, ‘প্রত্যেক ক্রিকেটারই চায় নিজের নৈপুণ্য দিয়ে দেশের পতাকাকে বিশ্বের মানচিত্রে তুলে ধরতে। আমারও স্বপ্নও সেরকম। আমি এবং আমার সহযোদ্ধারা নিজেদেরকে পরিণত করে দেশের ক্রিকেটকে বিশ্বদরবারে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যেতে চাই।’ সাকিবের বাবা গৌছ আলী ও মা সেলিনা বেগম জানান- সাকিব যখন খেলতে যায় তখন থেকেই তারা ছেলেসহ গোটা টিমের মর্যাদায় দোয়া করেছেন। বিকালে নিজ এলাকা বালাগঞ্জে যান সাকিব। স্থানীয় তাজপুর বাজার থেকে বালাগঞ্জ বাজার পর্যন্ত সাকিবকে মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা সহকারে নিয়ে যাওয়া হয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর