× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেট
ঢাকা, ৩১ মার্চ ২০২০, মঙ্গলবার

‘ওয়ানডে’ পোড়াচ্ছে মুমিনুলকে

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৮:৫৭

টেস্ট শেষ হতেই ব্যাগ গুছিয়ে বাড়ি ফিরেছেন মুুমিনুল হক সৌরভ। আবার মাঠে ফেরার জন্য তার লম্বা অপেক্ষা। এপ্রিলে করাচিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট ম্যাচ। তার আগে ব্যাট-বল হাতে আর আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা হচ্ছে না দেশের নয়া টেস্ট অধিনায়কের। কারণ ওয়ানডে দলে তার জায়গা হয় না ২০১৮ থেকে। ৬ বছর আগে খুলনায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেক হয়েছিল। তখন থেকে মাত্র ২৮ ম্যাচেই খেলার সুযোগ হয়েছে। ওয়ানডে খেলার ইচ্ছা তাকে দারুণভাবে পোড়াচ্ছে।
দৈনিক মানবজমিনকে মুমিনুল বলেন, ‘টেস্টটা জিততে পেরে ভালো লাগছে। এখন আর অনুশীলন ছাড়া খেলার সুযোগ নেই। যদি ওয়ানডে দলে থাকতাম তাহলে হয়তো মাঠে ম্যাচ অনুশীলনটা থাকতো। এটা সত্যি কথা আমি ওয়ানডে দলে ফিরতে চাই। আমার ইচ্ছা আছে, আর সুযোগের অপেক্ষায় আছি। এটাও সত্যি, শুধু টেস্ট খেলে নিজেকে ফিট রাখা বেশ কঠিন। কারণ আমরা অন্যদেশের মত এতো নিয়মিত ম্যাচ খেলি না।’
টেস্টে ৪০.৮৫ গড়ে ৯ সেঞ্চুরির সঙ্গে মুমিনুলের আছে ১৩ ফিফটি। অন্যদিকে ওয়ানডেতে তার পারফরম্যান্সের চিত্র একেবারেই ভিন্ন। ২৮ ম্যাচে মাত্র ৩ ফিফটি। ২২.২৮ গড়ে করেছেন ৫৫৭ রান। স্পেশালিট টেস্ট ব্যাটসম্যানের তকমা নিয়ে চলতে হচ্ছে মুমিনুলকে। তিনি বলেন, ‘সত্যি ওয়ানডেতে আমি এখনো নিজের সেরা পারফরম্যান্স করতে পারিনি। তাই আমাকে দলে বিবেচনা করার সুযোগ নেই। আমি এই ফরম্যাটে আমার পারফরম্যান্সের উন্নতির জন্য এখন মনোযোগ দেবো।’
ওয়ানডের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে মুমিনুলের সামনে রাস্তা বলতে ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগ। আগামী ১৫ই মার্চ শুরু হতে যাওয়া ঢাকা লীগে তিনি খেলবেন গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের হয়ে। এখনো দলবদল না হলেও অনেকটাই নিশ্চিত তার সেই দলে খেলা। মুমিনুল বলেন, ‘আসলে ব্যাট হাতে নিজেকে প্রমাণ করার কিছু নেই। তবে ওয়ানডেতে নিজের পারফরম্যান্সে উন্নতি করার অনেক কিছু আছে। সামনে এপ্রিলের আগে টেস্ট ম্যাচ নেই তাই সামনে ঢাকা লীগ ভরসা। সেই সঙ্গে ঢাকা লীগে সুযোগ সীমিত ওভারে নিজের যে দুর্বলতাগুলো আছে সেগুলো কাটিয়ে ওঠার। আমি আসলে ওয়ানডে ফেরার একটা প্ল্যাটফর্মই মনে করি এই লীগকে।’
শুধু মাত্র টেস্টে খেলেন এমন ক্রিকেটার অনেক আছেন। তবে মুমিনুল মনে করেন সেসব ক্রিকেটার বছরে যত টেস্ট খেলে তা বাংলাদেশ দুই বছরেও খেলার সুযোগ পায় না। এজন্যই নিজেকে ফিট রাখার জন্য ওয়ানডের প্রতি তার এতো আগ্রহ। মুমিনুল বলেন, ‘আমরা বছরে কয়টা টেস্ট খেলি? আপনি দেখেন পাকিস্তানের পর আমাদের টেস্ট আবার শ্রীলঙ্কায়। তাও তিন বা চার মাস পর। এতো দিন আমি ম্যাচ অনুশীলনে না থাকলে কীভাবে নিজেকে ফিট রাখবো! আমিতো টি-টোয়েন্টি খেলি না। দীর্ঘদিন পর আন্তর্জাতিক ম্যাচে খেলতে নেমে নিজেকে মানিয়ে নেয়াও খুব কঠিন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর