× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেট
ঢাকা, ৩১ মার্চ ২০২০, মঙ্গলবার
ওয়ানডে দল সিলেট যাচ্ছে আজ

ভুল থেকে শিক্ষা নিচ্ছেন আল আমিন

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৯:০০

টি-টোয়েন্টিতে এখনো দেশের অন্যতম সফল পেসার আল আমিন হোসেন। ৩০ ম্যাচে নিয়েছেন ৪১ উইকেট। পেসারদের মধ্যে তার চেয়ে বেশি উইকেট রয়েছে কেবল মাশরাফি বিন মুর্তজা (৪২) ও মোস্তাফিজুর রহমানের (৫৩)। টেস্ট ও ওয়ানডেতেও আল আমিনের ওপর ভরসা রাখে দল। তবে জাতীয় দল থেকে তার বাদ পড়ার কারণ পারফরম্যান্স নয়, ব্যক্তিগত জীবনের বিতর্ক। ২০১৫’র ফেব্রুয়ারিতে বিশ্বকাপ শুরুর আগমুহূর্তে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে ব্রিসবেন থেকে দেশে ফেরত পাঠানো হয় আল আমিন হোসেনকে। ওই বছর নভেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ফিরলেও পরে তার অপেক্ষায় কাটে দীর্ঘদিন। সাড়ে চার বছর পর বাংলাদেশ ওয়ানডে দলে ডাক পেয়েছেন আল আমিন হোসেন।
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলতে আজ সিলেট যাবেন দলের সঙ্গে। তার আগে গতকাল তিনি মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে অনুশীলনে এসেছিলেন । অনুশীলনের ফাঁকে আল আমিন বলেন,  ‘যখন ভুল করি তখন ভুলগুলো বুঝতে পারি। মানুষতো ভুল করেই।  সেখান থেকেই শিক্ষা নেয়। শৃঙ্খলা ইস্যু হতে পারে, ক্রিকেটীয় ইস্যু হতে পারে,  যেমন আমি সাদা বলে ভালো করছি না। আমি লাল বলে ভালো করছি না। এই সব থেকে কিভাবে শিক্ষা নিচ্ছি, সাদা বলে কিভাবে ভালো করতে হবে লাল বলে কিভাবে ভালো করতে হবে। সব কিছু মিলিয়ে শেখার তো শেষ নাই।’

আজ সিলেট রওয়ানা হবে ওয়ানডে দল। বলার অপেক্ষা রাখে না এই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজে অন্যতম আলোচনায় ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। বিসিবি সভাপতি ইঙ্গিত দিয়েছেন ওয়ানডে অধিনায়ক হিসেবে নতুন কারো নাম ঘোষণা করা হবে আগামী মাসেই। তাই সিলেটেই হয়তো শেষ হচ্ছে মাশরাফির  নেতৃত্বের অধ্যায়। আল আল আমিনও চাইছেন নিজের জায়গা পাকা করে নিতে। যা আগে তিনি করতে পারেননি। তিনি বলেন, ‘ক্যারিয়ার যখন শুরু করেছিলাম যদি নিয়মিত করতে পারতাম তাহলে ভালোভাবে প্রতিষ্ঠিত থাকতে পারতাম। মাঝখানে মোটামুটি একটা গ্যাপ গেছে। তারপরও চেষ্টা চালিয়ে গিয়েছি। টেস্টে এবং টি-টোয়েন্টিতে সুযোগ পেয়েছিলাম। দুটোতেই আল্লাহর রহমতে ভালো গেছে। এটা আরেকটা সুযোগ, যদি সুযোগ পাই ভালো করার চেষ্টা করবো।’

এবার টেস্ট দলে থাকার সুযোগ হয়নি তার। তাই নিজেকে শুধু সাদা বলে চিন্তা করছেন কিনা এমন প্রশ্ন আসতেই পারে। কিন্তু আল আমিন তা উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, এমন চিন্তা থাকলে তো বিসিএল ফাইনাল খেলতে চাইতাম না। সাদা বল চিন্তা করে ওয়ানডে টিমের সঙ্গেই অনুশীলন করতাম। যারা হয়তোবা টেস্টে ছিল না তারা কোচের সঙ্গে কাজ করেছে। আমারও অনুশীলন করার কথা ছিল, আমি বিসিএল ফাইনাল খেলতে গেছি।’  শুধু ওয়ানডেতেই নয় টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটেও ছিলেন অনেক দিন দলের বাইরে। গেল বছরের শেষ দিকে ভারত সফরে দলে জায়গা করে নেন। এরপর ছিলেন টেস্ট দলেও। আল আমিন বলেন, ‘টি-টোয়েন্টিতে যতগুলো খেলেছি ভালো হয়েছে। এখনও ওয়ানডেতে আমার জন্য আরেকটি সুযোগ। আমি চেষ্টা করবো টেস্টে এবং টি-টোয়েন্টিতে যেভাবে কাজে লাগানোর চেষ্টা করেছি ওয়ানডেতেও সেভাবে চেষ্টা করবো। চেষ্টা করবো ওয়ানডে দলে স্ট্যাবল থাকার। সাদা বল, লাল বল ওইভাবে প্রিপারেশন নেয়া খুব কঠিন। একজন ক্রিকেটার হিসেবে আপনাকে সমসময় রেডি থাকা উচিত। কারো ইনজুরি বা অন্য কারণে সুযোগ এলে আমি যেন কাজে লাগাতে পারি। আমি এভাবেই নিজেকে প্রস্তুত রাখার চেষ্টা করি।’ আল আমিন স্বীকার করে নেন জীবনের কঠিন সত্যিটাও। খেলার জন্য নয় তার বাদ পড়ার কারণগুলো ছিল অক্রিকেটীয়। তিনি বলেন, ‘আমি এতটুকু বিশ্বাস করি কোনো সময় খেলার জন্য দল থেকে বাদ পড়িনি। যে ইস্যুগুলো ছিল সেগুলো রিকভারি করার চেষ্টা করেছি। নিজেকে পরিবর্তন করতে হবে। টিম ম্যানেজম্যান্ট টিম ম্যানেজমেন্টের জায়গায় থাকবে। আমি কতটুকু প্রস্তত এর ওপর নির্ভর করবে আমার দলে থাকা না থাকা। আমি চেষ্টা করেছি তিন চার বছর আগে যে পারফর্ম করেছি তা থেকে আমাকে অবশ্যই ভালো পারফর্ম করতে হবে টিমে থাকতে হলে।

আশরাফুলকে গালি দিয়ে শাস্তি
স্পোর্টস ডেস্ক
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সীমিত ওভারের সিরিজ শুরুর আগে শাস্তি পেলেন আল আমিন হোসেন। বাংলাদেশ ক্রিকেট লীগের (বিসিএল) ফাইনালে প্রতিপক্ষ দলের ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ আশরাফুলকে সাজঘরে ফিরিয়ে বুনো উল্লাসে মাতেন পেসার আল আমিন। ম্যাচ রেফারি নিয়ামুর রশিদ রাহুলের প্রতিবেদন অনুযায়ী, উইকেট পাওয়ার পর আশরাফুলের উদ্দেশ্যে অশালীন ভাষা ব্যবহার ও আক্রমণাত্মক আচরণ করেন আল আমিন। আশরাফুলকে গালি দেয়ায় ৩০ বছর বয়সী এ পেসারকে ম্যাচ ফি’র ৫০ শতাংশ জরিমানা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আর এ নিয়ে আল আমিন বলেন, ‘খেলার সময় উত্তেজনা চলে আসে। জয়-পরাজয় মুখ্য হয়ে দাঁড়ায়। আশরাফুল ভাই আউট হওয়ার সময় বেশি উত্তেজিত হয়ে তার সামনে চিৎকার করেছিলাম। জানি না তখন কী বলেছি। মানছি এটা ঠিক হয়নি। ভুল তো মানুষেরই হয়।’

এ ঘটনায় আল আমিনের বিরুদ্ধে কোড অব কন্ডাক্টের লেভেল-১ বিধি ভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়। এমন অভিযোগে সর্বোচ্চ শাস্তি ম্যাচ ফির ৫০ শতাংশ জরিমানা। অপরাধ স্বীকার করে নেয়ায় আনুষ্ঠানিক শুনানির প্রয়োজন হয়নি।
পিঠের ইনজুরির কারণে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে খেলা হয়নি আল আমিন হোসেনের। তবে ওয়ানডে সিরিজে দলে রাখা হয়েছে ৩০ বছর বয়সী এ পেসারকে। ইনজুরি থেকে সেরে ওঠায় বিসিএল-এর ফাইনালে দক্ষিণাঞ্চলের হয়ে মাঠে নেমেছিলেন আল আমিন। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ফাইনালের চতুর্থ দিনে পূর্বাঞ্চলকে ২৬৮ রানে অলআউট করে দিয়ে ১০৫ রানে জয় কুড়ায় দক্ষিণাঞ্চল। প্রথম ইনিংসে উইকেটশূন্য ছিলেন আল আমিন। দ্বিতীয় ইনিংসে নিতে পেরেছেন কেবল মোহাম্মদ আশরাফুলের উইকেটটি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর