× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেট
ঢাকা, ২৯ মার্চ ২০২০, রবিবার

বশেমুরবিপ্রবির নতুন উপাচার্যকেও অবরুদ্ধ করলেন শিক্ষার্থীরা

শিক্ষাঙ্গন

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি | ৯ মার্চ ২০২০, সোমবার, ৬:০০

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) উপাচার্য (চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. মো. শাহজাহানসহ প্রায় ২৫ জন শিক্ষক-কর্মকর্তাকে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন ইতিহাস বিভাগের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

 আজ সোমবার দুপুর ১টার দিকে উপাচার্যসহ অন্যান্য শিক্ষক কর্মকর্তারা একাডেমিক ভবনের ৫০১ নং রুমে মিটিং আয়োজন করলে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা তাদেরকে বাইরে থেকে অবরুদ্ধ করে রুমের সামনে অবস্থান করেন। তাছাড়া আজ  সকাল থেকে ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা  আবারো প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছেন । আন্দোলনরত  শিক্ষার্থীরা উপাচার্য দপ্তর, রেজিস্ট্রার দপ্তর, প্রক্টর দপ্তর, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তর, অর্থ দপ্তর সহ সকল দপ্তরে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে। এর ফলে প্রশাসনিক কোন  কার্যক্রম চলছে না।  

এ বিষয়ে ইতিহাস বিভাগের  শিক্ষার্থী মো. সোহাগ জানান, আমরা প্রশাসনের সাথে মুজিববর্ষ নিয়ে আলোচনা করতে গেলে প্রশাসনের লোকজন জামাত শিবির বলে আখ্যায়িত করেন তাই আমরা অবরুদ্ধ করি। তাছাড়া ‘আমরা গত ১৮ ফেব্রুয়ারী ১৫ কর্মদিবস সময়সীমা দিয়েছিলাম। কিন্তু তারা এখন পর্যন্ত সমস্যা সমাধানে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি তাই পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী আমরা সকল দপ্তরে তালা দিয়েছি।’

এদিকে গতকাল একই দাবিতে ঢাকায় বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) কার্যালয় এবং জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেছিলো বিভাগটির ৫০ সদস্যের একটি দল। পরবর্তীতে ইউজিসি চেয়ারম্যানের সঙ্গে তাদের একটি আলোচনা সভাও অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভায় ইউজিসি চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, বিভাগটির চলমান তিনটি ব্যাচের অনুমোদন প্রদান করা হবে কিন্তু পরবর্তীতে বিভাগটিতে আর কোনো শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হবে কিনা সে বিষয়ে ৭ সদস্যবিশিষ্ট কমিটির প্রতিবেদনের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।  

 উল্লেখ্য. গত ৬ই ফেব্রুয়ারি বিভাগটিতে নতুন কোনো শিক্ষার্থী ভর্তি না করানোর নির্দেশ দেয় ইউজিসি। ইউজিসির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ৬ ফেব্রুয়ারি রাত থেকেই প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে আন্দোলন শুরু করে বিভাগটির শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে ইউজিসি ১৮ই ফেব্রুয়ারি ৭ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করে কিন্তু প্রায় ১৯ দিন পার হয়ে গেলেও কমিটি এখন পর্যন্ত কোনো কার্যক্রম শুরু করেনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর