× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেট
ঢাকা, ২৮ মার্চ ২০২০, শনিবার

‘সুনামি আসছে, যদি দাঁড়িয়েই থাকেন, আপনি শেষ’

করোনা আপডেট

অনলাইন ডেস্ক | ২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ১:০১

ধরুন একটি সুনামি আসছে আর আপনি বীচে দাঁড়িয়ে আছেন। আপনি যদি দাঁড়িয়েই থাকেন, আপনি শেষ। আপনি যতো জোরে পারেন দৌঁড়ান। আপনার আশা ততো বেশি। করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি নিয়ে এমনটাই বলেন, সেন্টার ফর ডিজিস ডায়ানামিকস, ইকোনমিক্স অ্যান্ড পলিসির পরিচালক ড. রামালাল লাক্সমিনারায়ণ।

বিবিসিকে দেয়া এক স্বাক্ষাতকারে তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস ভারতে সুনামির মতো আঘাত করতে যাচ্ছে। এতে আক্রান্ত হবেন ৩০ কোটির মতো মানুষ।

তিনি বলেন, এখন আগামী ৩ সপ্তাহের মতো সময় আছে। এরমধ্যে যা ভালো হয় তাই করতে হবে। আমি মনে করি, মানুষকে আতঙ্কিত না করে প্রস্তুতি নিতে হবে আমাদের।
আর এটাও মনে রাখতে হবে, জীবণে এটি একবারই ঘটতে যাচ্ছে।

সুনামির মতো করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হতে যাচ্ছে। যেটা সম্প্রতী চীন দেখেছে। আমরা বিশ্ব থেকে কয়েক সপ্তাহ পিছিয়ে আছি। এখানে অতি সম্প্রতি এটা হতে যাচ্ছে। আমরা যদি বেশি পরিমাণে পরীক্ষা-নীরিক্ষা করতাম অধিক পরিমাণে রোগী পেতাম। যখন পরীক্ষা-নীরিক্ষা হবে তখন কয়েক সপ্তাহের মধ্যে এটি হাজার হাজার ছাড়িয়ে যাবে। মনে রাখতে হবে, প্রতিটি কেস কিন্তু ২টি করে বেশি সংক্রমণ ছড়াচ্ছে।

ড. রামালাল লাক্সমিনারায়ণ বলেন, আমাদের হাতে মাত্র ৩ সপ্তাহ আছে। চীন যেভাবে করেছে আমাদেরও সেভাবে করতে হবে। আমাদের হাসপাতাল তৈরি করতে হবে। কিছু স্থাপনাকে সাময়িক হাসপাতালে পরিণত করতে হবে। যতো পারা যায় ভ্যান্টিলেটর সিস্টেম সংগ্রহ করতে হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
ম নাছিরউদ্দীন শাহ
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ৬:১৪

আল্লাহ্ এই ভয়াবহ কঠিন সময়ে একমাত্র আপনি রক্ষা করার মালিক। জীবন মৃত্যু আপনার হাতে রোগ শোক গজব রহমত ঈমানের পরিক্ষা। আমাদের যাওয়ার জায়গা ক্ষমা চাওয়া জায়গা আপনার ঘর মসজিদ বন্ধ হয়ে যাচ্ছেন। আল্লাহ্ আমাদের কৃতকৃর্মের জন্য আপনার দরবারে ক্ষমাভিক্ষা প্রার্থনা করছি। আল্লাহ্ করোনার মৃত্যুতে কেও পাশে থাকেনা জায়নামাজ হয় না আমাদের আশ্রয় দিন ক্ষমা করুন। আপনার অত্যন্ত সম্মানিত নামের উছিলায়। আপনি রাহমানের রাহিম। আপনি রাহমানের রাহিম।

Fakhrul
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ৩:৩৭

He is very correct, preparation is better than cure.

Professor Dr, M.H.Ra
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ৩:৩৩

It is not only tsunami, rather more than that. Sunami comes from the sea, however, you get this malady from land. If we read the history of Spanish flu, that killed more than those killed in WWI, still frightens me. Spanish flu pandemic that took over 10 million lives in India, may repeat again after 100 years. Unfortunately, it has fallen on the deaf ears. The focal point of the Spanish flu pandemic under British Raj a century ago was India, where between 10-20 million died. The disease hit India in two waves — an initial, milder attack followed by a severe wave through the country in the autumn of 1918. The disease is believed to have been brought to India by World War I soldiers returning home. Bengal was very hard hit along with coastal zones of Bihar and Odisha in those days. However, we do not try to learn from the history and thus, it repeats itself. Thus, my feeling is: washing your hands and putting gloves on the hand may not be sufficient to block the virus entry into your body, rather we must clean our soul, mouth, nose and lung by giving up smoking and refrain from consumption of alcohol.

আবুল কাসেম
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ১২:৫৯

আপনার অমূল্য পরামর্শগুলো যথাযথ কর্তৃপক্ষের নজর কাড়ুক। কালক্ষেপণ না করে তারা উদ্যোগী হোক মানুষ বাঁচাতে। কোয়ারান্টাইন সেন্টার বানান। হসপিটাল বানান। ডাক্তার ও নার্সদের নিরাপত্তা দিন, প্রশিক্ষণ দিন। টিভি মিডিয়ায়, টকশোতে বক্তব্য দিয়ে দায়িত্ব শেষ হয়না। কাজের পরিধি বাড়িয়ে দিতে পারেন। দয়া করে কিংকর্তব্যবিমূঢ় মানুষকে অভয় দিন। বাস্তবে কার্যকরী পদক্ষেপ নিন।

Md. Harun Al-Rashid
২৩ মার্চ ২০২০, সোমবার, ১:৫৩

আশাকরি আমাদের সরকার করোনার প্রচন্ডতা ও এর ভায়াবহ রুপ নেয়ার পূর্বেই দেশের সকল পাঁচতারা হোটেল, বড় বড় বেসরকারী ক্লিনিক, এমপি হোস্টেলসহ মাননীয় অর্থমন্ত্রীর অঙ্গীকারকৃত নূতন সাময়িক হাসপাতালটি নির্মান কাজ শেষ করে প্রস্তুতি শেষ করবেন। আক্রান্তের সংখ্যা হাজার থেকে পাঁচগুন হতে মাত্র ৪/৫ দিন সময় লাগবে। ভারতের মত এখনিই লকডাউন করে দিন। মানুষ বাঁচলে দিনরাত খেটে ক্ষতি পুষিয়ে নেয়া যাবে।

অন্যান্য খবর