× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেট
ঢাকা, ৪ এপ্রিল ২০২০, শনিবার

নিস্তব্ধ শহর, জনসমাগম ঠেকাতে মাঠে পুলিশ

বাংলারজমিন

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি | ২৭ মার্চ ২০২০, শুক্রবার, ৭:০৬

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ শহর থেকে বারবাজার যাবেন বলে মেইন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় যানবাহনের জন্য দাঁড়িয়ে ছিলেন শামছুল নামে এক যাত্রী। তিনি বলেন, হরতাল-অবরোধেও রাস্তা এমন ফাঁকা দেখা যায় না। আল্লাহ কি ভাইরাস যে দুনিয়ায় দিলো। বাজার-ঘাট সব বন্ধ হয়ে গেছে।
বিশে^ করোনা ভাইরাসে টালমাটাল। কোনো কোনো দেশে লকডাউন ছাড়াও জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। লাখ লাখ মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত। মহামারি এই ভাইরাসে প্রাণ হারিয়েছেন হাজার হাজার।
এ অবস্থায় বাংলাদেশেও গতকাল থেকে সব ধরনের গণপরিবহন চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এমনকি নিত্যপ্রয়োজনীয় ছাড়া সব দোকানপাট বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হতেও নিষেধ করা হয়েছে। জনসমাগম কমাতে সারা দেশে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।
সরজমিনে কালীগঞ্জ শহর ঘুরে দেখা গেছে, ওষুধের দোকান ছাড়া কোনো দোকান বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা পাওয়া যায়নি। শহর থেকে কোনো দূরপাল্লার বাস ছেড়ে যায়নি। শুধুমাত্র মেন বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে মাঝে মাঝে দুই একটা সিএনজি ছেড়ে যাচ্ছে। সেগুলোকেও পুলিশ বাধা দিচ্ছে।
কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুবর্ণা রাণী সাহা জানিয়েছেন, কালীগঞ্জ উপজেলার সকল সাপ্তাহিক হাট বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। অতি জরুরি ছাড়া কেউ বাইরে আসতে পারবেন না। একসঙ্গে দু’জন বাইরে ঘুরতে পারবেন না। কোনো কিছু ক্রয়ের সময় অন্তত পাঁচ হাত দূরে থাকুন। এটা লকডাউন নয়, সীমিত চলাচল।
এদিকে, শহরে ইজিবাইক, রিকশা, সিএনজিসহ ছোট-বড় যানবাহন চলাচল না করার জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হয়েছে। ওষুধের দোকান, মুদি দোকান, কাঁচা বাজার, খাদ্যপণ্য বিক্রি ও অন্যান্য জরুরি সেবা ও পণ্য সরবরাহ করা যাবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় প্রশাসন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর