× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেট
ঢাকা, ৪ এপ্রিল ২০২০, শনিবার

পাকুন্দিয়ায় ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে জখম

বাংলারজমিন

পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি | ২৭ মার্চ ২০২০, শুক্রবার, ৭:১৫

 কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় পূর্ব শত্রুতার জেরে জাহাঙ্গীর আলম মোনায়েম (৩৫) নামের এক ব্যবসায়ীকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে সন্ত্রাসীরা। উপজেলার চরআলগী গ্রামে মঙলবার সকালে এ ঘটনা ঘটলেও বৃহস্পতিবার সকালে আহতের ছোটভাই ইপেল মিয়া বাদী হয়ে পাঁচজনের নাম উল্লেখসহ আরও অজ্ঞাত ১০-১৫জনকে আসামী করে পাকুন্দিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। আহত মোনায়েম উপজেলার চরআলগী গ্রামের মৃত জালাল উদ্দিনের ছেলে। তিনি পেশায় একজন ইট ও বালু ব্যবসায়ী। তিনি বর্তমানে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মঙলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঘর থেকে এক লাখ ৪০হাজার টাকা সঙ্গে নিয়ে একই গ্রামের মান্নানের ইটভাটা থেকে ইট কেনার জন্য বের হন জাহাঙ্গীর আলম মোনায়েম। পথে একই এলাকার মোস্তফার বাড়ির সামনে পৌঁছলে পূর্ব-শত্রুতার জেরে পার্শ্ববর্তী পাগলা থানার বিরুই গ্রামের মড়ল মিয়ার ছেলে রতন মিয়ার নেতৃত্বে ১০-১৫জন সন্ত্রাসী মোনায়েমের পথরোধ করে। এসময় রতন মিয়ার হুকুমে প্রথমে একই থানার বারুই গ্রামের রাশিদের ছেলে রিপন মিয়া ওরফে কিরিচ রিপন মোনায়েমের মাথায় রামদা দিয়ে কোপ দেয়।
পরে সকল সন্ত্রাসী মোনায়েমের ওপর সশস্ত্র হামলা চালায়। তারা তাকে কুপিয়ে ও বেধড়ক পিটিয়ে মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গা ক্ষত-বিক্ষত করে দেয়। সঙ্গে থাকা এক লাখ ৪০ হাজার টাকাও নিয়ে যায় রতন মিয়া। তার ডাকচিৎকারে এলাকার লোকজন এগিয়ে গেলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে মোনায়েমের বাড়ির লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে। অবস্থা আশঙ্কাজনক থাকায় তাকে কিশোরগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে পাঠান কর্তব্যরত চিকিৎসক। সেখান থেকে ওইদিনই উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার উত্তরা ক্রিসেন্ট হাসপাতালে নিয়ে তাকে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন। পাকুন্দিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মফিজুর রহমান অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর