× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেট
ঢাকা, ২৮ মার্চ ২০২০, শনিবার

জনগণের পাশে ভারত সরকার ১.৭ ট্রিলিয়ন রুপির প্যাকেজ ঘোষণা

দেশ বিদেশ

মানবজমিন ডেস্ক | ২৭ মার্চ ২০২০, শুক্রবার, ৭:৪৭

 করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় নাগরিকদের সহায়তার অংশ হিসেবে ১.৭ ট্রিলিয়ন রুপি বা প্রায় ২২.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ঘোষণা করেছে ভারত সরকার। দেশটিতে চলছে ২১ দিনের লকডাউন। এ সময় অর্থনৈতিকভাবে দেশটির নাগরিকরা যে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন সেটি কিছুটা পুষিয়ে দেয়ার চিন্তা করেই এ অর্থ ঘোষণা করা হয়েছে। এর অংশ হিসেবে নিশ্চিত করা হবে ৮০ কোটি দরিদ্র ভারতীয়ের খাদ্য নিরাপত্তা। এ খবর দিয়েছে সিএনবিসি।
খবরে বলা হয়, ভারতের কম বেতনে কর্মরত পেশার মানুষদের বেতনের নিশ্চয়তাও দেয়া হয়েছে এই ঘোষণায়। রয়েছে সরাসরি অর্থ সহযোগিতার বিষয়ও। দিল্লিতে দেশটির কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন এ ঘোষণা দেন।
এতে তিনি বলেন, আমরা একটি পরিকল্পনা নিয়ে এসেছি। যেটি ভুক্তভোগী দরিদ্র মানুষ যাদের সাহায্য দরকার তাদের কথা চিন্তা করে করা হয়েছে। ভারতের ১৩০ কোটি মানুষকে ২১ দিন নিজের বাড়িতে অবস্থান করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। প্রাথমিকভাবে দেশটির দরিদ্র জনগোষ্ঠী যারা দিন এনে দিন খায় তারা এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিল। তবে অর্থমন্ত্রীর এ ঘোষণায় আশঙ্কা অনেকটাই দূর হয়েছে।
নির্মলা সীতারমনের ঘোষণায় জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রীর গরিব কল্যাণ প্রকল্পের আওতায় এতদিন ৮০ কোটি মানুষ প্রতিমাসে স্বল্পমূল্যে (৩ রুপিতে ১ কেজি চাল ও ২ রুপিতে ১ কেজি গম) ৫ কেজি চাল অথবা গম পেতেন। আগামী তিন মাস ওই পরিকল্পনার পাশাপাশি অতিরিক্ত আরো ৫ কেজি চাল বা গম বিনামূল্যে দেয়া হবে তাদের। দেয়া হবে অতিরিক্ত ১ কেজি ডালও। দিল্লিতে সাংবাদিক বৈঠক করে এছাড়া আরো একাধিক পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করেন সীতারমন ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর। জানান, যে সমস্ত সংস্থার কর্মীসংখ্যা ১০০-র কম এবং যাদের ৯০ শতাংশ কর্মীর বেতন ১৫ হাজার রুপির কম, তাদের হয়ে কর্মচারী প্রভিডেন্ট ফান্ডে ২৪ শতাংশ টাকাই জমা করে দেবে ভারত সরকার। অর্থাৎ, মালিকপক্ষ ও কর্মী, দু’পক্ষের হয়েই কেন্দ্র টাকা দেবে। এছাড়াও, বর্তমান পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে, ইপিএফ আইনে রদবদল ঘটাতেও সরকার প্রস্তুত বলেও জানান সীতারমন। জরুরি পরিস্থিতিতে কেউ চাইলে প্রভিডেন্ট ফান্ডের ৭৫ শতাংশ অথবা তিন মাসের বেতন তা অগ্রিম তুলতে পারবেন। এছাড়া, ঘোষণায় আরো কিছু প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে। যার মধ্যে আছে, তিন মাসের জন্য নির্দিষ্ট কিছু পরিবারকে বিনামূল্যে রান্নার গ্যাসের সিলিন্ডার সরবরাহের ঘোষণা। দেশটিতে যাদের জনধন অ্যাকাউন্ট রয়েছে তাদের আগামী তিন মাসের জন্য ৫০০ রুপি করে দেয়া হবে। এতে ২০ কোটি ভারতীয় নারী উপকৃত হবেন। দেশটিতে যারা ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তি, বিধবা এবং প্রতিবন্ধী আছেন তাদেরকে অতিরিক্ত ১০০০ রুপি করে দেয়া হবে প্রতিমাসে। দু’দফায় তারা এ অর্থ পাবেন। ঘোষিত অর্থ থেকে ১০০ দিনের কাজের আওতায় শ্রমিকদের পারিশ্রমিক বাড়িয়ে ২০২ টাকা করে দেয়ার কথাও জানান অর্থমন্ত্রী সীতারমন। এছাড়া, সকল কৃষকের অ্যাকাউন্টে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহেই ২ হাজার টাকা করে জমা দেয়া হবে বলে আশ্বাস দেয়া হয়েছে। চিকিৎসক ও নার্সদের জন্যও আগামী ৩ মাস ৫০ লাখ টাকার বীমা ঘোষণা করা হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর