× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৫ জুন ২০২০, শুক্রবার

বিশিষ্ট নাট্যকর্মী ঊষা গাঙ্গুলি চলে গেলেন

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২৩ এপ্রিল ২০২০, বৃহস্পতিবার, ২:১৯

চলে গেলেন বিশিষ্ট নাট্যকর্মী ঊষা গাঙ্গুলি। তাঁর পরিবার সূত্রে  জানানো হয়েছে বৃহস্পতিবার সকালে কলকাতাতে মৃত্যু হয়েছে ‘রঙ্গকর্মী’ নাট্যগোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা ঊষা গাঙ্গুলির । মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর। পশ্চিমবঙ্গে হিন্দি নাটক মঞ্চস্থ করে সাফল্যের শিখর ছুঁয়েছিলেন যে দুজন তাঁদের অন্যতম ছিলেন ঊষা গাঙ্গুলি । বাংলায় হিন্দি নাট্যকারদের মধ্যে আরেকজন হলেন ‘পদাতিক’-এর প্রতিষ্ঠাতা শ্যামানন্দ জালান। ঊষা গাঙ্গুলির অভিনয় জীবনের সূচনা হয়েছিল শূদ্রক রচিত ‘মৃচ্ছকটিকম’ অবলম্বনে ‘মিট্টি কি গাড়ি’ নাটকে বসন্তসেনার অভিনয় দিয়ে। উত্তর প্রদেশের নেরভা গ্রামের জন্ম হলেও  তাঁর বড় হওয়া রাজস্থানে। পরে কলকাতায় এসে শ্রী শিক্ষায়তন কলেজে ভর্তি হন এবং হিন্দি সাহিত্যে স্নাতকোত্তর পাস করেছিলেন।
১৯৭৬ সালে তিনি কলকাতাতেই  নিজের নাট্য দল ‘রঙ্গকর্মী’ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। বিশিষ্ট প্রয়াত নাট্যকার তৃপ্তি মিত্র এবং প্রয়াত পরিচালক মৃণাল সেনের কাছে তালিম নেওয়ার পর ১৯৮০ সালে নিজেই নাটক পরিচালনা শুরু করেছিলেন । তাঁর পরিচালিত উল্লেখযোগ্য নাটকগুলি হল, ‘মহাভোজ’, ’রুদালি’, ‘হোলি’, ‘সরহদ পার মান্টো’, ’চন্ডালিকা’। ১৯১১ সালে তাঁর পরিচালনা করেছিলেন বাংলা  নাটক ‘মানসী’। ২০০৩ সালে কাশীনাথ সিংয়ের গল্প ‘কানে কৌন কুমতি লাগি’ অবলম্বনে লিখেছিলেন ’কৌশিকনামা’ নাটক। ২০০৪ সালে ঋতুপর্ণ ঘোষ পরিচালিত ‘রেইনকোট’ ছবির চিত্রনাট্য লিখতেও প্রয়াত পরিচালককে সহায়তা করেছিলেন তিনি। ১৯৯৮ সালে পরিচালনার জন্য সঙ্গীত নাটক অ্যাকাডেমি পুরস্কার পেয়েছিলেন তিনি। তৃপ্তি মিত্রর পরিচালনায় ইবসেনের নাটক ‘আ ডলস্ হাউস’ অবলম্বনে ‘গুড়িয়া ঘর’-এ অভিনয়ের জন্য পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কারও পেয়েছিলেন। তাঁর মৃত্যুর খবরে শোকজ্ঞাপন করেছে রাজ্য সরকার সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতানেত্রীরা। শোকজ্ঞাপন করেছেন নাট্যজগত সহ সংস্কৃতি জগতের মানুষ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর