× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৭ জুন ২০২০, রবিবার

মর্যাদা আর মহাসম্মানের রাত শবে কদর

খোশ আমদেদ মাহে রমজান

মাওলানা এম. এ. করিম ইবনে মছব্বির | ১২ মে ২০২০, মঙ্গলবার, ১২:০৫

কদর আরবি শব্দ। এর অর্থ মর্যাদা ও মহাসম্মান। এ রাত হাজার মাসের চেয়ে শ্রেষ্ঠ রাত। এখানে বলা প্রয়োজন, কেন এই রাতকে শবে কদর বা কদরের রাত বলা হয়। একজন বান্দা তার জীবনে বিশাল পথ অতিক্রম করেছে। আল্লাহর দেয়া অগনিত নিয়ামত ভোগ করেছে। অথচ আল্লাহর নির্দেশ মানেননি। আদেশ পালন করেননি।
পাপের কলঙ্কে মুছে গেছে তার প্রকৃত অস্তিত্ব। সে আজ বড় অসহায়। এমন অভাগার জীবনেও যদি একটি লাইলাতুল-কদর আসে। সে যদি সে রাতে অতীতের সকল পাপ কাজের অনুশোচনার মন নিয়ে ইবাদত করতে পারে। সকল অপরাধ বর্জনের শপথ নেয়। আগামী জীবনে আর পাপ না করার সংকল্পে  দু'চোখে অনুতাপের অশ্রুবন্যা প্রবাহিত করে। হৃদয় খুলে তওবা করতে পারে। যদি কাটাতে পারে নিখুত ইবাদত সাধনায় এমন একটি মহিমান্বিত রজনী। তাহলেই  তার অন্ধকার জীবন পরিনত হবে এক মহিমান্বিত জীবনে। আর এভাবেই শবে-কদর সম্মান ও মর্যাদার রাত। এ রাত একটি অসহায় ও অবহেলিত জীবনে এনে দেয় মর্যাদার প্রবাহ। সেখানে থাকে না আর অপরাধের বিন্দু চিহ্ন। তখন আর বুঝতে কষ্ট হয় না। সত্যিই শবে-কদর মহিমান্বিত জীবনের আশ্বাস সম্বলিত জীবনের  পয়গাম।
শবে কদর এমন মহিমান্বিত রাত, যে রাতের ইবাদত হাজার মাসের ইবাদত অপেক্ষা উত্তম। এই রাতকে পুরো মাসব্যাপী তালাশ করতে হুকুম করা হয়েছে। আর শেষ দশ বেজোড় রাতে তালাশের বিশেষ হুকুম করা হয়েছে। যদি এই রাত সমূহ জাগরণ সম্ভব না হয় তাহলে ২৭শে রমজানের রাত তুলনামূলক অধিক ইবাদত করার কথা বলা হয়েছে। শুধু তাই নয়, রমজানের প্রতি রাতেই অধিক পরিমান ইবাদত করা উচিত।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর