× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৪ জুন ২০২০, বৃহস্পতিবার

বিড়ি-সিগারেট-তামাকজাত পণ্য বিক্রি বন্ধের প্রস্তাব, শিল্প মন্ত্রণালয়ের না

অনলাইন

অনলাইন ডেস্ক | ২০ মে ২০২০, বুধবার, ৫:৫২

বিড়ি, সিগারেটসহ তামাকজাত পণ্য উৎপাদন, সরবরাহ ও বিক্রি সাময়িকভাবে বন্ধ করার প্রস্তাব করে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়। আজ এই প্রস্তাব আলোচনার পর না করে দিয়েছে বাংলাদেশ শিল্প মন্ত্রণালয়।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবদুল হালিম জানান, এটা একটা শিল্প, এখানে প্রচুর লোকজন কাজ করছে। সুতরাং এখান থেকে অন্যদিকে শিফট করতে গেলে, সময় নিয়ে নিয়ে, কৌশল ঠিক করে সেটা করতে হবে। এই শিল্প কোথায় যাবে, লোকগুলো কোথায় যাবে - সেটা একটা সময়ের ব্যাপার।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানো পাল্টা চিঠিতে শিল্প মন্ত্রণালয় লিখেছে, এটা এখন বন্ধ করা এখন সমীচীন হবে না বা যৌক্তিক হবে না।

জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেলের সমন্বয়কারী যুগ্ম সচিব মো. খায়রুল আলম শেখ স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়েছিল, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তামাককে কোভিড-১৯ সংক্রমণ সহায়ক হিসাবে চিহ্নিত করে এর ব্যবহার নিরুৎসাহিত করার কথা বলেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
রিপন
২০ মে ২০২০, বুধবার, ৮:৩৭

সস্তা মন্ত্রণালয়ের মাথায় সস্তা উদ্ভট প্রলাপ ছাড়া আর কিছু ঘোরে না। বিশ্ব সস্তা সংস্থার পেইড এজেনটের চিন্তন সক্ষমতার দৌড় সবাই বোঝে। মোল্লার দৌড় মসজিদ তক। আর, আমাদের সস্তা মন্ত্রণালয়ের দৌড় সুদিচক্রের মুখপাত্র বিশ্ব সস্তা সংস্থা তক, তা কে না জানে?

Professor Dr, Mohamm
২০ মে ২০২০, বুধবার, ৮:২২

কভিড -১৯ মহামারীর শুরুতেই বিড়ি / সিগারেট ধূমপায়ীরা আক্রান্ত হবে এটা প্রমানিত । কারন, আঙ্গুল ত্থেকে প্রথমে ঠোটে এবং পরে গিলে ফেলা তামাকের ধোঁয়া নাক দিয়ে বের করে দিলেই তার নেশাটা পূর্ণ হওয়ার সাথে সাথে মহামারীও তার শরীরে স্থান পাবে। যার কারনে, কভিড -১৯ মহামারীর মৃত্যু এক অপমৃত্যু এবং এর সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। আসছে ১৫ দিন আর ভঙ্ককর হবে। গতকাল, এই ব্যাপারে সরকারি পদক্ষেপ আশার আল জাগালেও বিড়ি একটি শিল্প, েই অদ্ভুত যুক্তি দেখিয়ে আপাততঃ ধুম্পানের মত সর্বগ্রাসী বাবস্থাকে বাঁচিয়ে রাখা হল। জানিনা এতে কে বা কারা উপকৃত হবে। পাশ্চ্যাতে বিশেষ করে বিলেতে ধূমপায়ী নেই বললেই চলে, যদিও ওরাই তিনশো বছর আগে এই বিষ বিক্রির ব্যাবসা শুরু করে। কভিড -১৯ মহামারীর কারনে নটিংহামের সর্ব শেষ ফ্য্যাক্টীরেতে তালা ঝুলানো হয়েছে । আর আমরা মহামারীকে চিরস্তায়ী করার চেচটা করছি। আসা করি শুভ বুদ্ধির উদয় হবে এবং বিড়ির/ তামাকের ব্যবসা এখানেও বন্ধ হবে। আমি আসাবাদি।

অন্যান্য খবর