× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৬ জুন ২০২০, শনিবার

আম্ফানে বিদ্যুৎ বিভ্রাট সত্ত্বেও নেটওয়ার্ক চালু রাখতে সচেষ্ট মোবাইল সেবাদাতারা

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ২১ মে ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৫:২৫

বিদ্যুৎ বিভ্রাট সত্ত্বেও নেটওয়ার্ক চালু  রাখতে সচেষ্ট মোবাইল সেবাদাতারা। এ প্রসঙ্গে মোবাইল অপারেটরদের সংগঠন এমটব মহাসচিব ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম ফরহাদ (অবঃ) বলেন, “সুপার সাইক্লোন আম্পান দেশের টেলিকম নেটওয়ার্ক অবকাঠামোয় অনেক ক্ষতি করেছে। খুলনা, বরিশাল, চাটগ্রাম, সিলেট, ঢাকা, ময়মনসিংহ, রংপুর ও রাজশাহীর প্রায় ৫০ থেকে ৬০ শতাংশ মোবাইল সাইট এই দানবীয় ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এটি দক্ষিণাঞ্চলের জেলাগুলিতে টেলিকম সেবাকে ব্যাহত করে।ঘূর্ণিঝড়টি দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় অঞ্চলে আঘাত হানার সাথে সাথে অনেক অঞ্চলে বিদ্যুত সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। প্রাথমিকভাবে অপারেটররা ব্যাটারির সাহায্যে মোবাইল টাওয়ারগুলি চালু রাখে। তবে ব্যাটারির ক্ষমতা শেষ হয়ে গেলে, অপারেটররা সেবা চালিয়ে যাওয়ার জন্য জেনারেটরের সাহায্য নেয়।
আজ (বৃহস্পতিবার) সকাল ১১ টা পর্যন্ত টাওয়ারের প্রায় ৩০ শতাংশ বা ১৩,০০০ সাইট জাতীয় গ্রিড থেকে বিদ্যুৎ পাচ্ছিল না। বর্তমানে দেশে প্রায় ৩৫,০০০ মোবাইল টাওয়ার রয়েছে।
ক্ষতিগ্রস্থ অঞ্চলে বিদ্যুৎ সরবরাহ পুনরুদ্ধার করতে বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের নিরলস পরিশ্রম আমাদের জন্য অত্যন্ত উৎসাহব্যাঞ্জক। তবে যেহেতু ক্ষতিগ্রস্ত টাওয়ারগুলি বেশিরভাগ পল্লী অঞ্চলে অবস্থিত, তাই প্রান্তিক অঞ্চলগুলোতে সেবা পুনরুদ্ধারে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বিশেষ সহায়তার প্রয়োজন।
এদিকে, সারা দেশে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলির কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণের কারণে বিভিন্ন স্থানে মোবাইল সেবা দানকারি ও তাদের অংশীদার সংস্থায় কর্মরত কর্মীদের চলাচলে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। টেলিকম অবকাঠামো পুনরুদ্ধার করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আন্তরিক সহযোগিতা জরুরী, যা চলমান করোনার মহামারী পরিস্থিতিতে দেশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর