× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৬ জুন ২০২০, শনিবার

শাহরাস্তিতে লকডাউনে বাড়ীতে আসায় টেইলার্স কর্মীকে পিটিয়ে জখম

বাংলারজমিন

শাহরাস্তি (চাঁদপুর) প্রতিনিধি | ২৩ মে ২০২০, শনিবার, ১১:৪৬

চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে এক টেইলার্স কর্মীকে লকডাউন না মেনে বাড়ি ফেরায় একদল দুর্বৃত্তের হামলার শিকার হয়েছে। আহত সাঈদ নামের ওই যুবক বর্তমানে শাহরাস্তি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। শুক্রবার আহত ওই টেইলার্স কর্মী শাহরাস্তি থানায় এই বিষয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। শাহরাস্তি পৌর শহরের ৬ নং ওয়ার্ডের কাজির কাপ হাকিম মেম্বারের বাড়ির সম্মুখে তার উপর দুর্বৃত্ত কর্তৃক হামলার এ ঘটনা ঘটে। হামলার শিকার টেইলার্স কর্মী ও সংশ্লিষ্ট থানা সূত্র জানায়, ওই গ্রামের আবু সাঈদ চৌধুরী (৩৫) দীর্ঘদিন ধরে চাঁদপুর জেলা পরিষদ সম্মুখে একটি টেইলার্স দোকানে টেইলার্স দোকান পরিচালনা করে আসছিল। স¤প্রতি করোণা প্রাদুর্ভাবে দেশব্যাপী লকডাউন হওয়ার সেও সেখানে আটকা পড়ে। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮ টায় সে চাঁদপুর থেকে নিজ বাড়ীতে ফিরলে বাড়ির সম্মুখে রাস্তার উপর একদল যুবক তার পথ আগলে গতি রোধ করে। তারা জানতে চায় চাঁদপুরের করোনাভাইরাসের ‘‘হটস্পট’’ থেকে সে এলাকায় এলো কি জন্য ? ওই কথার রেশ না কাটতে দুর্বৃত্তের দল তার উপর দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে, তার সঙ্গে থাকা একটি দামী স্যামসাং মুঠোফোন ও নগদ ২১ হাজার ৫ শত টাকা ছিনিয়ে নেয়।
ওই সময় হামলার শিকার সাঈদ বাঁচার চেষ্টায় চিৎকার দিলে দুর্বৃত্তরা তাকে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ফের তার ওপর আবার হামলা করে। ওই হামলায় সে মাটিতে লুটিয়ে অচেতন হয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে শাহরাস্তি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত ডা. তাকে ভর্তি দেয়। হামলার শিকার সাঈদ আরো জানান, তিনি চাঁদপুর জেলা পরিষদ সংলগ্ন মা টেইলার্স সত্ত¡াধিকারী সেখানে তিনি পুলিশ লাইনের পুলিশ সদস্যদের পোষাক তৈরি করে জীবিকা নির্বাহ করেন। তিনি বর্তমান সরকারদলীয় পৌর আ'লীগের কমিটির একজন সক্রিয় কর্মী। এই ঘটনা অবশেষে আবু সাঈদ চৌধুরী অভিযুক্তদের দায়ী করে শাহরাস্তি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এ বিষয়ে শাহরাস্তি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহ আলম বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, বিষয়টি তদন্ত করে আইনি প্রক্রিয়ায় অগ্রসর হব।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর