× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ৮ জুলাই ২০২০, বুধবার

ভারতে ঈদ সোমবার, কেরালা ও জম্মু-কাশ্মীরে আজ

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২৪ মে ২০২০, রবিবার, ১১:২৯

শনিবার শাওলের চাঁদ দেখতে না পাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতেও ২৫ মে অর্থাৎ সোমবারই ঈদ পালিত হবে বলে ঘোষণা করেছেন দিল্লির জামা মসজিদের শাহি ইমাম সৈয়দ আহমেদন বুখারি। অবশ্য জম্মু ও কাশ্মীর এবং কেরালায় আজ রবিবারই ঈদ পালন করা হচ্ছে বলে সংবাদ সংস্থা জি নিউজ জানিয়েছে। বলা হয়েছে, জম্মু ও কাশ্মীরের প্রধান মুফতি নাসির উল ইসলাম জানিয়েছেন, চাঁদ দেখতে পাওয়ায় রবিবারই রাজ্যে ঈদ পালিত হবে। কেরালায়ও একই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। শনিবার জমিয়ত উলেমা হিন্দের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দিল্লিতে রুয়াতএ হিলাল কমিটি, ইমারাত এ শরিয়া হিন্দ বৈঠকে বসেছিল। তবে শনিবার দিল্লি বা অন্যত্র চাঁদ দেখতে পাওয়ার কোনও খবর না আসায় সোমবার ঈদ পালনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে এবার ঈদ ব্যতিক্রমীভাবে পালনের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। শাহি ইমাম বলেছেন, করোনা পরিস্থিতিতে সব গাইডলাইন মেনে চলতে হবে।
বাড়িতে বসেই ঈদ পালন করতে হবে। হাত মেলানো বা কোলাকুলি করা থেকে বিরত থাকারও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। বলেছেন, সতর্কতা নেওয়া ও সোশ্যাল ডিসট্যান্স মেনে চলা খুবই জরুরি। কলকাতার মুসলিম ধর্মীয় নেতারাও বাড়িতে বসেই ঈদ পালনের আবেদন করেছেন। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও শনিবার বলেছেন, আপনারা বাড়িতে থেকে রমজান মাস কাটিয়েছেন। আমি হাতজোড় করে আবেদন করছি, এবার বাড়িতে বসেই ঈদ পালন করুন। তিনি বলেন, আমি প্রতিবছর রেড রোডে ঈদের নামাজে যেতাম। এবার সেটি হবে না। আমারও খারাপ লাগছে। আসলে গোটা বিশ্বেই এবার ঈদ অন্যান্য বারের তুলনায় আলাদা ভাবে পালিত হচ্ছে। রমজানও ছিল অনেকটাই অন্যরকম। মুসলিমরা বাড়িতে বসেই এবার তারাবির নামাজ আদায় করেছেন এবং ইফতার সেরেছেন। ঈদেও এবার প্রথা মেনে একসঙ্গে নামাজ পড়া হবে না। এদিকে ইসলামের ধর্মীয় শিক্ষাকেন্দ্র দারুল উলুম দেওবন্দও তাদের এক নির্দেশিকায় মুসলিমদের এবার নিজেদের ঘরের ভেতরেই ঈদ পালন করতে বলেছে। দেওবন্দ বলেছে, মহামারি ঠেকাতে এবারের ঈদে বড় জমায়েত থেকে দূরে থাকাই উচিৎ। কলকাতায় নাখোদা মসজিদ কর্তৃপক্ষ এক নোটিশে ঈদের দিন সেখানে সাধারনের প্রবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। অথচ প্রতি বছর নাখোদা মসজিদে প্রায় ৫০ হাজার মানুষ ঈদের নামাজে অংশ নিতেন। ধর্মতলা ও টালিগঞ্জের টিপু সুলতান মসজিদের পক্ষ থেকেও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, আগের মতই ঈদের দিন সাধারণ মানুষের জন্য মসজিদের দরজা বন্ধই থাকবে। এ বছর কলকাতার রেড রোডে এশিয়ার অন্যতম বৃহত্তম ঈদের নামাজ হবে না বলে আগেই জানিয়েছে কলকাতা খিলাফত কমিটি। এদিকে, প্রথা মেনে প্রতিবারের মতো সবাইকে নিয়ে যাতে ঈদ উদযাপন না-করা হয়, সে জন্য ‘হ্যাশট্যাগ নো ঈদ সেলিব্রেশন’ কিংবা ‘হ্যাশট্যাগ নো নিউ ক্লোদস ইন ঈদ’ সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সাড়া ফেলেছে। ভারতের ১৭ কোটিরও বেশি মুসলিমের কাছে ঈদের উদযাপন দেশের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় ও সামাজিক উৎসব।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর