× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ১৫ জুলাই ২০২০, বুধবার

‘সৌদি আরব শাসন করছে একদল অবুঝ শিশু’

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৩০ মে ২০২০, শনিবার, ৮:৪৯

সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের একজন গুরুত্বপূর্ণ উপদেষ্টা সম্প্রতি একটি দাতব্য সংস্থার জন্য অনলাইন ভিডিওগেম প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। কিন্তু অদ্ভুত বিষয় হলো, ম্যাচে হেরে গিয়ে তিনি রাগে নিজের টিভিই ভাঙচুর করেন। সেই ভিডিও আবার তিনি টুইটারে আপলোডও করেছেন। এ নিয়ে কৌতুক আর হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে অনলাইনে। সৌদি আরবের বিনোদন বিষয়ক কর্তৃপক্ষের প্রধান তুর্কি আল-শেখ সম্প্রতি অনলাইনে ফিফা-২০ ফুটবল প্রতিযোগিতার আয়োজন করেন। এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে অর্জিত অর্থ সৌদি আরবজুড়ে অভাবে থাকা মানুষজনকে সহায়তা দেওয়ার কথা। কিন্তু কয়েক মিনিটের মাথায় অনলাইন ফুটবল ম্যাচে আল-শেখ দ্বিতীয় গোল খেয়ে বসেন। এতেই রাগে ক্ষোভে তিনি হাতের কন্ট্রোলার ছুড়ে মারেন টিভির দিকে।

এতে টিভি সম্পূর্ণ ভেঙ্গে যায়। পরে ওই ঘটনার ভিডিও তিনি আপলোড করেন টুইটারে। সেখানে তিনি লিখেন, ‘ছোটখাটো দাঙ্গার পর আমরা এখন নতুন টিভি কিনবো। আর এই খেলা শেষ করবো। এটা এখনও শেষ হয়ে যায়নি।’ অনেকটা কৌতুকছলে বলা হয়েছে মনে হলেও, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেক ব্যবহারকারীর কাছেই মনে হয়েছে যে, এই শিশুতোষ রাগক্ষোভ আসলে ক্রাউন প্রিন্সের শাসনাধীন সৌদি আরবেরই প্রতিফলন। এ খবর দিয়েছে মিডল ইস্ট আই।
মধ্যপ্রাচ্য গবেষক আন্দ্রিয়া ক্রেইগ ওই ভিডিও রিটুইট করে লিখেছেন, ‘সৌদি আরবের নেতৃত্বে আছে একদল অবুঝ শিশু। এমবিএস’র উপদেষ্টা ও ঘনিষ্ঠ মিত্র তুর্কি আল শেখ একটা ভিডিওগেম হেরেই যে প্রতিক্রিয়া দেখালো, তা থেকেই বোঝা যায় রিয়াদের নয়া শাসকরা আসলে কেমন। উগ্র, অযৌক্তিক, বাস্তবতার জ্ঞানহীন, ফাঁপা, আর আত্ম-কেন্দ্রীক।’
এই টুইট রিটুইট করে আরেকজন লিখেছেন, এটি একটি সাধারণ ভিডিও মনে হতে পারে, কিন্তু কে এই কাজটি করেছেন, তার ওপরই সব নির্ভর করে। ইনি তুর্কি আল-শেখ, যিনি এমবিএস’র ঘনিষ্ঠ উপদেষ্টা। একটি ভিডিওগেম হেরেই তিনি টিভি ভেঙ্গে ফেলেছেন। সৌদি আরব আসলে একদল টনটনে মেজাজের শিশুরা শাসন করছে।

আল-শেখ আবার স্পেনের দ্বিতীয় বিভাগের ফুটবল দল ইউডি আলমেরিয়ার মালিক। অনেকেই বলছেন, তিনি যে খামখেয়ালী স্বভাবে আলমেরিয়া পরিচালনা করেন, সেটিও এখান থেকে বোঝা যায়। এই অনলাইন চ্যারিট ম্যাচে আল শেখের প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন সৌদ আল-সুয়েইলেম। তিনি সৌদি ফুটবল দল আল-নাসরের সাবেক মালিক। এই গেমের আগে তাদের দু’ জনকেই অনেক নামিদামি ফুটবলার শুভকামনা জানান। খোদ লিয়নেল মেসি, দিয়েগো ম্যারাডোনা, পল পগবা, রোনালদিনহোর মতো খেলোয়াড়ও মুখিয়ে ছিলেন এই খেলার দিকে। এমনকি অভিনেতা চার্লি শিন, র‍্যাপার স্নুপ ডগ ও সাবেক বাস্কেটবল তারকা ডেনিস রডম্যানও এই খেলার আগে শুভকামনা জানিয়েছেন। ফলে অনেকেই ধরে নিয়েছেন যে তারকা অভিনেতা-অভিনেত্রী ও খেলোয়াড়দেরকেও হয়তো টাকাপয়সা দিয়েই এই খেলার প্রচারণা করা হয়েছে। অথচ, সেই খেলাই এভাবে ভেস্তে দিলেন আল শেখ। এর আগেও সৌদি আরবের বিরুদ্ধে সেলেব্রেটি-ওয়াশ বা সেলেব্রেটিদের মাধ্যমে বাজে মানবাধিকার রেকর্ড ধুয়েমুছে ফেলার অভিযোগ উঠেছিল।
বিনোদন কর্তৃপক্ষের প্রধান হিসেবে আল শেখ দেশের অভ্যন্তরে কনসার্ট ও খেলাধুলা আয়োজনের পেছনে কয়েকশ’ কোটি ডলারের তহবিলের দায়িত্বে রয়েছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Samsulislam
৩০ মে ২০২০, শনিবার, ৯:১২

সালমান আধুনিকতার সাথেই এগুচ্ছেন।

অন্যান্য খবর