× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ১৩ জুলাই ২০২০, সোমবার

দুই মাস বন্ধের পর মসজিদ খুলে দিলো সৌদি আরব

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৩১ মে ২০২০, রবিবার, ৪:৩০

করোনা ভাইরাস (কভিড-১৯) মহামারির মধ্যে প্রায় দুই মাস বন্ধ থাকার পর মসজিদ খুলে দিয়েছে সৌদি আরব। আজ রোববার থেকে সেখানে মসজিদে নামাজ আদায় করতে পারবেন মুসুল্লিরা। মসজিদে নামাজ আদায়ের অনুমোদন দেয়া হলেও প্রার্থনাকারীদের মেনে চলতে হবে কঠোর নিয়ম। মসজিদে যেতে হবে মাস্ক পরে। অন্যথায়, শিকার হতে হবে জরিমানার। এছাড়া, নামাজ আদায়ের জন্য মসজিদে নিয়ে যেতে হবে ব্যক্তিগত জায়নামাজ। একে অপর থেকে দুই মিটার দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। নিষিদ্ধ করা হয়েছে হ্যান্ডশেক বা হাত মেলানো।
এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।
খবরে বলা হয়, রোববার উচ্ছ্বসিত হয়ে মসজিদে নামাজ আদায় করেছেন সৌদির মুসুল্লিরা। রাজধানী রিয়াদের আল রাঝি মসজিদের মুয়াজ্জ্বিন আব্দুলমাজিদ আল মোহাইসেন বলেন, ফের সৃষ্টিকর্তার করুণা অনুভব করতে পেরে অত্যন্ত ভালো লাগছে। মানুষজনকে তাদের বাড়ির বদলে মসজিদে এসে নামাজ আদায়ের ডাক দিতে পেরে ভালো লাগছে।
রিয়াদের বাসরত সিরিয় নাগরিক মামুন বশির বলেন, আজ আজান শোনার পর ও মসজিদে প্রবেশ করার পর আমার চোখ ভরে জল নেমে এসেছে। আমাদের ফের মসজিদে আসার সুযোগ দেয়ায় সৃষ্টিকর্তাকে অশেষ ধন্যবার।
মসজিদ খুলে দিলেও কঠোর বিধিনিষেধ জারি রেখেছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। ১৫ বছরের কম বয়সী শিশু ও জটিল রোগে ভোগা রোগীদের মসজিদে যাওয়া নিষিদ্ধ রয়েছে। এদিকে, আরব নিউজ জানিয়েছে, নামাজ আদায়ের জন্য নিরাপদ করে তুলতে মসজিদগুলোকে পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত করা হয়েছে। দরজা জানালা খোলার ব্যাপারেও সতর্কতা অবলম্বন করতে বলা হয়েছে। স্থানীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, নামাজ আদায়ের ১৫ মিনিট আগে মসজিদ খুলে দেয়া হবে ও নামাজ শেষের ১০ মিনিট পর ফের বন্ধ করে দেয়া হবে। শুক্রবার জুম্মার নামাজ আদায়ের ক্ষেত্রে ২০ মিনিট আগে মসজিদ খুলে দেয়া হবে। তবে কোনোমতেই জুম্মার নামাজ আদায়ে ১৫ মিনিটের বেশি সময় যেন না লাগে সেদিকে খেয়াল রাখতে বলা হয়েছে।      
জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটির উপাত্ত অনুসারে, এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩ হাজারের বেশি। মারা গেছেন ৪৮০ জন করোনা রোগী।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর