× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ১৫ জুলাই ২০২০, বুধবার

সোনামসজিদ স্থলবন্দরে আমদানি রপ্তানি শুরু

এক্সক্লুসিভ

শিবগঞ্জ (চাঁপাই নবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি | ৩ জুন ২০২০, বুধবার, ৭:২৮

ভারতের মহদীপুর রপ্তানিকারক এসোসিয়েশনের আহ্বানে মঙ্গলবার থেকে পুনরায় শুরু হতে যাচ্ছে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্থলবন্দর সোনামসজিদ। টানা দুই মাস ৭ দিন করোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ থাকার পর সোনামসজিদ বন্দর দিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে। সোনামসজিদ কাস্টমসের সহকারী কমিশনার সাইফুর রহমান জানান, গত ২৫শে মার্চ সোনামসজিদ বন্দর দিয়ে বন্ধ হয়ে যায় পণ্য আমদানি-রপ্তানি। পরে সীমিত আকারে গত ১৫ই এপ্রিল থেকে অফিস চালুর সরকারি সিদ্ধান্তের পর থেকেই বন্দর কার্যক্রম চালুর চেষ্টা হলেও ভারতীয় কর্তৃপক্ষের অনীহার কারণে সে সময় বন্দর চালু করা সম্ভব হয়নি। তবে গত ৩১শে মে ভারতীয় রপ্তানিকারক এসোসিয়েশনের এক বার্তায় জানিয়েছে- মঙ্গলবার থেকে ভারতীয় পণ্যবাহী ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে। এদিকে, পানামা সোনামসজিদ পোর্ট লিংক লিমিটেডের ম্যানেজার মাইনুল ইসলাম জানান, আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে বন্দর চালুর জন্য গত ১৫ই এপ্রিল থেকেই প্রস্তুত আছি। ভারতীয় কর্তৃপক্ষ পণ্য দিলে পানামা কর্তৃপক্ষ করোনার সর্বোচ্চ সর্তকতা বজায় রেখে বন্দর পরিচালনা করবে। গেল ৩১শে মে রাতে ভারতীয় রপ্তানিকারক এসোসিয়েশনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফজলুল হক স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে পহেলা জুন থেকে বাংলাদেশে এ বন্দর দিয়ে পণ্য রপ্তানির আহ্বান দেখানো হয়।
যার অনুলিপি মালদা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, সোনামসজিদ স্থলবন্দর সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট এবং আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপ এসোসিয়েশনসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে পাঠানো হয়। এ বিষয়ে মহদীপুর সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ভূপতি মণ্ডল জানান, গত ২৭শে এপ্রিল বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে বন্দর দিয়ে আমদানি রপ্তানির শুরুর অনুরোধ জানিয়ে একটি চিঠি দেয়ার পর ভারতীয় ব্যবসায়ীরা জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে অনুমতি চাইতে গেলে করোনা ভাইরাসের কারণে লকডাউন থাকায় অনুমতি মিলেনি। তবে এবার মঙ্গলবার থেকে তারা বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানি করতে পারবে বলে আশা প্রকাশ করেন।
উল্লেখ্য, গত ২৫শে মার্চ লকডাউনের পর ১৫ই এপ্রিল সরকার বন্দরের কার্যক্রম সীমিত আকারে চালুর ঘোষণার সময় ভারতীয় ব্যবসায়ীরা পণ্য আমদানি করতে গিয়ে মালদা জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের অনুমতি না পাওয়ায় আমদানি রপ্তানি শুরু করতে পারেননি। এতে মহদীপুর স্থলবন্দরে সোনামসজিদ স্থলবন্দরে প্রবেশের অপেক্ষায় আটকে পড়েছে পিয়াজসহ সাড়ে ৩ হাজার পণ্যবাহী ট্রাক। পরে ৩১শে মে ভারতীয় ব্যবসায়ীরা আবারো পণ্য রপ্তানির আহ্বানে বাংলাদেশের সোনামসজিদ স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক এসোসিয়েশনকে একটি চিঠি দেয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর