× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকরোনা আপডেটকলকাতা কথকতাখোশ আমদেদ মাহে রমজান
ঢাকা, ১৫ জুলাই ২০২০, বুধবার

খাদ্য সামগ্রী নিয়ে অসহায়ের দ্বারে দ্বারে পুঠিয়ার ইউএনও

বাংলারজমিন

পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধি | ৬ জুন ২০২০, শনিবার, ১১:৫৬

অদৃশ্য মরণঘাতক করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব শুরু থেকেই রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় সংক্রমণ রোধে দিন-রাত নিরলসভাবে কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন ইউএনও মো. ওলিউজ্জামান । প্রায় এক বছর হলো ইউএনও হিসেবে পুঠিয়া উপজেলায় যোগদান করলেও তার কর্মকান্ডে দক্ষতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন ইতোমধ্যে।
সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতের লক্ষে উপজেলার গ্রামগুলোতে লোকজনদের সচেতন করার জন্য নিয়েছেন নানা পদক্ষেপ । আবার করোনা আক্রান্ত লকডাউন করা পরিবার বা এলাকাগুলোতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে নিজেই বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়েছেন।

প্রায় প্রতিদিনই উপজেলার ছয়টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা খাদ্যসামগ্রী সঠিকভাবে বিতরণের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে দুস্থ অসহায় কর্মহীনদের হাতে হাতে তুলে দিচ্ছেন। পাশাপাশি উপজেলার কোনো অসহায় লোকজন নির্দিষ্ট নম্বরে কল দিলে নিজেই খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিচ্ছেন তিনি।

কিছুদিন পূর্বে ঘটে যাওয়া নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যে নিয়ে দাম বৃদ্ধির গুজব সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিয়ে বাজার মনিটরিং করা, খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর চাল বিক্রিতে অনিয়মকারীদের বিরুদ্ধে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা গ্রহণ সহ নানা পজেটিভ কর্মকান্ডে উপজেলা জুড়ে বেশ সুনাম অর্জন করেছেন ইউএনও মো. ওলিউজ্জামান।

তাছাড়া ঘুর্ণিঝড় আস্পান মোকাবেলাসহ ঘুর্ণিঝড় পরবর্তী সময়ে তাৎক্ষনিক সরেজমিনে ক্ষতিগ্রস্থদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে তাদের খোঁজ খবর নিয়েছেন।

ইউএনও মো. ওলিউজ্জামান জানান, করোনাভাইরাস প্রার্দুভাবের শুরু থেকেই ভাইরাস সংক্রমণ রোধে রাত-দিন মাঠে কাজ করতে হচ্ছে। বিশেষ করে গত আড়াই মাস ধরে উপজেলার অসহায় দুস্থ কর্মহীন লোকজনদের মাঝে খাদ্য সহায়তা, সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ এবং বিভিন্ন কারণে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা চলমান রয়েছে।

উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে খাদ্য সহায়তা অসহায়দের মাঝে বিতরণ করা হচ্ছে। এছাড়া ভাসমান লোকজন, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠিসহ লিস্টের বাইরে দুঃস্থদের খোঁজ নিয়ে বাড়ি বাড়ি খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

এছাড়া নির্দিষ্ট নাম্বরে ফোন দিলে তার অধীনস্তদের মাধ্যেমে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করে যাচ্ছেন। ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয় থেকে বরাদ্দকৃত বিভিন্ন উপহার ও খাদ্য সামগ্রী করোনা দুর্যোগে অসহায় দুস্থদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে দ্রুত ও সঠিকভাবে বিতরন সহ নগদ সহায়তা তাদের হাতে হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর