× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৯ আগস্ট ২০২০, রবিবার

ডোমারে পানির নিচে আউশের বীজতলা

বাংলারজমিন

নীলফামারী প্রতিনিধি | ৩ জুলাই ২০২০, শুক্রবার, ৭:৩৮

জেলার ডোমারে গত দুইদিনের ভারী বৃষ্টিপাতে বেড়ে গেছে নদ-নদীর পানি। ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে ডুবে গেছে আউশ বীজতলা। ভেসে গেসে গেছে লাখ লাখ টাকার মাছ। নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে উপজেলা ও পৌরসভার দুই শতাধিক পরিবার রয়েছে হাঁটুপানিতে। ভারী বৃষ্টিপাতের সাথে বজ্রপাতে এক নারী নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।
মঙ্গল ও বুধবারের ভারী বৃষ্টিপাতে উপজেলার সবকটি নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে গেছে। ভারী বৃষ্টিপাতের দরুন ডোমার পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের জুম্মা পাড়া কোমর পানির নিচে বসবাস করছে। বুধবার রাত থেকেই ভারী বুষ্টিপাতে পৌরসভার এই পাড়াটি হাঁটুপানিতে রয়েছে। এছাড়া উপজেলার প্রায় দুই শতাধিক পরিবারের ঘরবাড়ি পানি প্রবেশ করে নষ্ট হয়ে গেছে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র।
ভারী বৃষ্টিপাতে তলিয়ে গেছে আউশের বীজতলা। ভেসে গেছে লক্ষ লক্ষ টাকার মাছ। শিয়াল ডাঙ্গি গ্রামের শিক্ষক হরিদাস রায় জানান, বুধবার রাত থেকে অতি বৃষ্টির কারণে তার পুকুর ডুবে সব মাছ বের হয়ে গেছে। বড় রাউতা গ্রামের হাজিনুর রহমান জানান, আউশের দোগোজ বীজতলা পানির নিচে তলিয়ে গেছে। বীজতলা নষ্ট হলে আউশ আবাদ হুমকির মুখে পরবে বলে তিনি জানান। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আনিছুজ্জামান বেশকিছু বীজতলা পানিতে তলিয়ে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আউশের আবাদে কৃষকের যাতে কোন ক্ষতি না হয় সে বিষয়ে কাজ করছে কৃষি বিভাগ। এদিকে অতিবৃষ্টির কারনে অনেক মাছ চাষীর মাছ বৃষ্টির পানিতে ভেসে গেছে এতে ক্ষতি হয়েছে লক্ষ লক্ষ টাকার বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্তরা। বৃহস্পতিবার সকালে বৃষ্টির সাথে বজ্রপাতের ঘটনায় উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের নওদাবস এলাকার আব্দুল মান্নানের স্ত্রী ফাতেমা বেগম নিহত হয়েছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর