× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৪ আগস্ট ২০২০, মঙ্গলবার
চীন-ভারতের সংঘাত

বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, দক্ষিণ কোরিয়া ও আসিয়ানভুক্ত ব্লক থেকে পণ্য আমদানিতে কড়া নজরদারি চায় ভারত

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৬ জুলাই ২০২০, সোমবার, ৯:৩৪

বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, দক্ষিণ কোরিয়া ও আসিয়ানভুক্ত ব্লক থেকে ভারতে যেসব পণ্য প্রবেশ করে সেগুলোর ওপর কড়া নজর রাখতে বলেছে ভারতের বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়। এর কারণ, তাদের আশঙ্কা এসব দেশ থেকে যেসব পণ্য ভারতে প্রবেশ করে তার মধ্যে চীনা পণ্যও প্রবেশ করতে পারে। এ খবর দিয়ে অনলাইন দ্য ইকোনমিক টাইমস লিখেছে, এ বছর ভারতের প্রস্তাবিত বাজেটে যেসব পরিবর্তন আনা হয়েছে, তার অধীনে ভারতের মুক্ত বাণিজ্য চুক্তির আওতায় রেয়াতি সুবিধার ক্ষেত্রে কাস্টমস আইন দ্রুত সংশোধন করার কথা বলা হয়েছে। অর্থ মন্ত্রণালয়কে এই মন্ত্রণালয় রুলস অব অরিজিন সম্পর্কিত বিধি কঠোরভাবে প্রয়োগের জন্য এফটিএ লঙ্ঘন চেক করার জন্য কাস্টমস কর্মকর্তাদের ক্ষমতায়ন করার কথা বলেছে। বাজেটে বাণিজ্য চুক্তির অধীনে রুলস অব অরিজিন সংক্রান্ত একটি নতুন অধ্যায় সরকার যুক্ত করেছে কাস্টমস এক্টে। তথ্যের ঘাটতি অথবা যাচাইকরণে ঘাটতি এবং রীতির লঙ্ঘনের ক্ষেত্রে পছন্দসই শুল্ক সুবিধা স্থগিত অথবা প্রত্যাখ্যানের ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। উপরন্তু একজন আমদানিকারক শুধু পণ্যের উৎস সংক্রান্ত সনদ দিয়েই শুল্ক সুবিধা নিতে পারবেন না।
একজন সিনিয়র কর্মকর্তা বলেছেন, তৃতীয় কোনো দেশ থেকে যেসব পণ্য আমদানি হবে তা আমরা তদন্ত করবো।
সন্দেহজনক কোনো চালান ক্লিয়ারেন্স দেয়া হবে না। অপ্রয়োজনীয় আমদানি ব্লক করে দিতে হবে। ওই কর্মকর্তা আরো বলেন, প্রস্তাবিত আইনে আমদানিকারকের অনুরোধে পণ্য ছাড় দেয়া যেতে পারে, যদি আরোপিত শুল্ক এবং পছছন্দসই শুল্ক দাবির মধ্যে কোনো অর্থ প্রধান করেন তিনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর