× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ১৫ আগস্ট ২০২০, শনিবার

সাইপ্রাসের সঙ্গে সামরিক প্রশিক্ষণের ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের, তুরস্কের উদ্বেগ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১১ জুলাই ২০২০, শনিবার, ৫:০৬

সাইপ্রাসের সঙ্গে সামরিক মহড়া ও প্রশিক্ষণ শুরু করার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে এ নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে তুরস্ক। এর আগে গত বছর সাইপ্রাসের ওপর থেকে দীর্ঘ দিনের অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেয় যুক্তরাষ্ট্র। ১৯৮৭ সাল থেকে দেশটিতে মার্কিন অস্ত্র বিক্রি বন্ধ ছিলো। এবার দেশটিকে সামরিক প্রশিক্ষণ দেয়ার কথাও জানিয়েছে ওয়াশিংটন।
আল-জাজিরার খবরে জানানো হয়েছে, ১৯৭৪ সালে তুরস্কের সেনারা সাইপ্রাসের উত্তরাঞ্চলীয় একটি বড় এলাকা দখল করে নেয়। এখনো তুরস্ক সেখানে হাজার হাজার সেনা মোতায়েন করে রেখেছে তুরস্ক। এটিকে ১৯৮৩ সালে স্বাধীন ঘোষণা করে তুরস্ক।
এখন পর্যন্ত তুরস্ক ছাড়া কেউ একে স্বীকৃতিও দেয়নি। তবে এবার সেই সাইপ্রাসকে পুনরায় অস্ত্র ক্রয়ের সুযোগ করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। একইসঙ্গে এখন সাইপ্রাসের সেনাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও করছে ওয়াশিংটন। এ নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছে তুরস্ক। সামরিক জোট ন্যাটোর দুই সদস্য রাষ্ট্র সাইপ্রাস ইস্যুতে বিপরীত অবস্থানে রয়েছে।
বুধবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক প¤েপও বলেন, যুক্তরাষ্ট্র প্রথমবারের মতো সাইপ্রাসকে তার আন্তর্জাতিক সামরিক প্রশিক্ষণ প্রোগ্রামে যুক্ত করছে। এরমধ্য দিয়ে দুই দেশের মধ্যে নিরাপত্তা ও সামরিক স¤পর্ক বৃদ্ধি পাবে বলেও জানান তিনি। তবে এই ঘোষণার নিন্দা জানিয়েছে তুরস্ক। দেশটি জানিয়েছে, যে সিদ্ধান্ত দুই পক্ষের মধ্যে ভারসাম্য রক্ষা করে নেয়া হয়না সেটি কোথাও স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করতে পারে না। যুক্তরাষ্ট্রের এমন সিদ্ধান্ত এ অঞ্চলে শান্তি নিয়ে আসবে না। এক বিবৃতিতে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হামি আকসয় এ কথা বলেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর