× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৯ আগস্ট ২০২০, রবিবার

ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে পথ দেখাচ্ছে সিপিএল

খেলা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১২ জুলাই ২০২০, রবিবার, ৮:০৩

করোনা মহামারিকে অনেকটা চ্যালেঞ্জ জানিয়েই মাঠে ফিরেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। নিজেদের ডেরায় এখন ইংল্যান্ড লড়ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছে অন্য দলগুলোও। এবার ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট মাঠে নামাতে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছে ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ (সিডব্লিউআই)। আগামী ১৮ই আগস্ট থেকে মাঠে গড়াবে ছয় দলের ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লীগ (সিপিএল)। সফলভাবে আসরটি আয়োজনে মহাপরিকল্পনা সাজিয়েছে সিডব্লিউআই। তাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে সে পথে হাঁটবে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া, আফগানিস্তানও। সুরক্ষিত পরিবেশে ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটের আসরটি চলবে ১০ই সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।
সকল স্বাস্থ্য নির্দেশনা মেনেই অনুষ্ঠিত হবে এবারের সিপিএল। তাই খেলোয়াড়, স্টাফ, অফিসিয়াল ও সংশ্লিষ্ট সকলের চারবার করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হবে। সিপিএল পুরোটাই হবে দর্শকহীন স্টেডিয়ামে। শুধুমাত্র ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোতে আয়োজিত হবে এবারের সিপিএল। ব্রায়ান লারা ক্রিকেট একাডেমি এবং কুইন্স পার্ক ওভাল স্টেডিয়ামে হবে সেমিফাইনাল ও ফাইনাল সহ মোট ৩৩টি ম্যাচ। ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোর উদ্দেশে বিমানে চড়ার আগেই ছয় ফ্র্যাঞ্চাইজির ক্রিকেটার ও টিম ম্যানেজমেন্ট, টুর্নামেন্ট আয়োজক এবং সম্পৃক্ত সবাইকে দুই সপ্তাহের জন্য সেলফ-আইসোলেশনে থাকতে হবে। ত্রিনিদাদে পৌঁছানোর আগে সংশ্লিষ্ট সবাইকে করোনা পরীক্ষা করতে হবে। সেখানে পৌঁছার পর আইসোলেশনে থাকতে হবে আরও দুই সপ্তাহ। পৌঁছানোর পর সবার কোভিড-১৯ পরীক্ষা করা হবে। এক সপ্তাহ ও দুই সপ্তাহ পর পরীক্ষা হবে আরও দুবার। ছয় দলের সবাই থাকবেন একটি হোটেলে। ধারণা করা হচ্ছে সর্বমোট ২৫০ জন খেলোয়াড় ও স্টাফ হতে পারে। টিম হোটেলে খেলোয়াড় কিংবা টিম ম্যানেজমেন্টের কোনো অতিথি আসতে পারবে না। জীবাণুমুক্ত পরিবেশ হলেও প্রতি দলের ক্রিকেটারদের ছোট ছোট গ্রুপে ভাগ করা হবে। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে কিংবা চলাকালীন যদি কোনো গ্রুপের একজন পজিটিভ হন, পুরো গ্রুপকেই থাকবে হবে সেলফ-আইসোলেশনে। সিপিএলের প্লেয়ার্স ড্রাফট হয়ে গেছে গত মাসে। সেখানে কয়েকজন বাংলাদেশি ক্রিকেটারের নাম থাকলেও তারা কেউ অবশ্য দল পাননি। ত্রিনিদাদের সুরক্ষিত পরিবেশের কারণে সিপিএল মাঠে নামাতে পারছে ক্রিকেট ওয়েস্ট ইন্ডিজ। গত মার্চের শেষ দিকে বহিরাগতদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। সিপিএল দিয়েই উঠে যাচ্ছে এই নিষেধাজ্ঞা। কঠোর বিধি-নিষেধের কারণে ত্রিনিদাদে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। সেখানকার স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, ৯ই জুলাই পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন কেবল ১৩৩ জন, মৃত্যু হয়েছে ৮ জনের।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর