× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ৬ আগস্ট ২০২০, বৃহস্পতিবার

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে দগ্ধ চিকিৎসক রাজিব মারা গেছেন

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ২৮ জুলাই ২০২০, মঙ্গলবার, ১০:২৫

রাজধানীর হাতিরপুলের একটি বাসায় হ্যান্ড স্যানিটাইজার থেকে আগুনে দগ্ধ চিকিৎসক দম্পতির মধ্যে ডা. রাজিব ভট্টাচার্য (৩৬) শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে মারা গেছেন।

মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) সকাল সাড়ে আটটার দিকে আই সি ইউতে তিনি মারা যান। তার স্ত্রী ডা. অনূসূয়া ভট্টাচার্য (২০) শতাংশ দগ্ধ অবস্থায় সেখানে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, মঙ্গলবার (২১ জুলাই) দিনগত রাত ১টার দিকে ওই দম্পতি দগ্ধ হন। রাজিবের শরীরের ৮৭ শতাংশ দগ্ধ হয়েছিল।

তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। তার অবস্থা ছিল সংকটাপন্ন। তার স্ত্রীর শরীরেরও ২০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। তার অবস্থাও গুরুতর।

ওই সময় দগ্ধ রাজিবের বন্ধু ডা. সুদীপ দে জানিয়েছিলেন, রাজিব ও অনুসূয়া হাতিরপুল ইস্টার্ন প্লাজার পেছনের একটি বাড়ির তৃতীয় তলার ভাড়াটিয়া। রাজিব বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) নিউরোসার্জারি বিভাগের চিকিৎসক আর স্ত্রী শ্যামলী সেন্ট্রাল মেডিক্যাল চক্ষু বিভাগের রেজিস্ট্রার।

তাদের একমাত্র মেয়ে রাজশ্রী ভট্টাচার্য (৫) কুমিল্লার দেবীদ্বারে দাদা বাড়িতে রয়েছে তিন সপ্তাহ ধরে।
তিনি আরো জানান, আমরা শুনেছি, মঙ্গলবার রাতে রাজিব একটি বড় বোতল থেকে ছোট বোতলে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ঢালছিলেন।
এসময় বোতল থেকে স্যানিটাইজার পড়ে জ্বলন্ত সিগারেট বা মশার কয়েলের সংস্পর্শে এলে আগুন ধরে যায়। এতে রাজিব দগ্ধ হন। আর তাকে বাঁচাতে গিয়ে স্ত্রীও দগ্ধ হন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
SIRAJUR RAHMAN
২৮ জুলাই ২০২০, মঙ্গলবার, ১১:১০

Sanitizer যদি ভাল হয় তাহলে তাতে ৬৫% ethyl alcohol থাকবে। অনেক সময় দোকানদারদের কাছে যা কিনতে পাওয়া যায় তাতে অনেক সময় থাকে methyl alcohol (a poisonios product). বাজার এ যা পাওয়া যাচ্ছে তা খুব low viscous. এটা একটা সন্দেহজনক ব্যাপার। সুতরাং, সাবধান। Dr. রাজীব, একটা রিস্ক নিয়েছিলেন। Ethyl alcohol ও methyl alcohol অত্যন্ত বিপদজ্জনক কেমিক্যাল এবং অত্যন্ত দাহ্য বস্তু। তরুণ প্রাণ চলে গেল।

অন্যান্য খবর