× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, বৃহস্পতিবার

করোনা: অদ্ভুত শাস্তি

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৮ আগস্ট ২০২০, শনিবার, ১২:২৯

করোনা ভাইরাস সংশ্লিষ্ট নিয়ম ভঙ্গের অভিযোগে অদ্ভুত শাস্তি দেয়া হচ্ছে ভেনিজুয়েলায়। এমন ব্যক্তিদের ঠাটাপড়া রোদের মধ্যে বসিয়ে রাখাটাই হলো শাস্তি। রাজধানী কারাকাসে এমন দৃশ্য দেখা গেছে। এ বিষয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, বৃহস্পতিবার আটা কিনতে বাইরে বেরিয়েছিলেন রবার্তো ভারগাস। মুখে মাস্ক ছিল তার। কিন্তু খুব ঘেমে গিয়েছিলেন তিনি। এ থেকে মুখও বাদ যায় নি। তাই এক পর্যায়ে তিনি মুখের ঘাম মোছার জন্য মাস্ক সরান মুখ থেকে।
কিন্তু তা দেখে ফেলেন ন্যাশনাল গার্ডের এক অফিসার। আর যায় কোথা! তিনি তাকে নির্দেশ দিলেন রাস্তার পাশে অন্য কয়েক ডজন মানুষের সঙ্গে ৫০ মিনিট রোদে বসে থাকতে।  
এই শাস্তি শেষ হওয়ার পর পেতারে বস্তিতে বসবাস করা রবার্তো ভারগাস বলেন, এসব হলো পাগলামি। স্থানীয় অধিকার বিষয়ক গ্রুপগুলো বলেছে, সারা দেশে এমন শাস্তি দিচ্ছে কর্তৃপক্ষ। দোকানে কেনাকাটা করতে গিয়ে যথাযথভাবে লাইনে না দাঁড়ানো থেকে শুরু করে কারফিউ না মানার অভিযোগ- যেকোনো অভিযোগে এমন শাস্তি দেয়া হচ্ছে।
অধিকার বিষয়ক গ্রুপ প্রুভিয়া গত ৩১ শে জুলাই একটি ভিডিও পোস্ট করেছে টুইটারে। তাতে দেখা যায়, পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য তাচিরাতে তিন যুবককে বুকডন দিতে বাধ্য করছে সেনারা। একই সময় তাদেরকে বলতে বাধ্য করছে যে, রাস্তায় বেরুনো উচিত হয়নি আমার। শৃংখলা রক্ষার নামে অনেক স্থানে নিরাপত্তা রক্ষাকারীরা সহিংসতার আশ্রয় নিচ্ছে। ২২ শে জুলাই তারা টুইটারে আরেকটি ভিডিও পোস্ট করে, যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এতে দেখা যায় করোনা ভাইরাস সম্পর্কিত নিয়ম ভাঙার অভিযোগে বাস্কেটবল ব্যাট দিয়ে তিন ব্যক্তি পায়ে আঘাত করা হচ্ছে। এ বিষয়ে ভেনিজুয়েলার তথ্য মন্ত্রণালয় কোনো প্রতিক্রিয়া দেয় নি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর