× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার

হাত-পা বেঁধে মুয়াজ্জিনকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন, মূলহোতা আটক

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল থেকে | ৮ আগস্ট ২০২০, শনিবার, ৮:২১

ভোলায় হাত-পা বেঁধে মসজিদের মুয়াজ্জিন মোঃ মুনসুরকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে। নির্যাতনের শিকার ওই মুয়াজ্জিন সদর উপজেলার ইলিশা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের রফিকুল ইসলামের ছেলে।
নির্মম ওই নির্যাতনের ঘটনার একটি ভিডিওটি শুক্রবার (৭ আগস্ট) মুহূর্তের মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। এরপরই স্থানীয় ইলিশা ফাঁড়ির ইনচার্জ রতন শীলের নেতৃত্বে এএসআই মাইনুলসহ পুলিশের একটি টিম ঘটনার মূলহোতা রশিদ মল্লিককে আটক করে। এরআগে সদর উপজেলার ২নং ইলিশা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের গুপ্ত মুন্সি গ্রামে ওই নির্যাতনের ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী মুয়াজ্জিন জানান, ‘ আমি নিজে আমার জমির চারা উঠিয়েছি, এজন্য ঈদের ৪ থেকে ৫ দিন আগে আমার দুলাভাই রশিদ মল্লিক, সাইবালী মল্লিকের ছেলে আসাদ মল্লিক ঘর থেকে ধরে নিয়ে আমাকে বেঁধে মারধর করে। এ সময় আসাদ মল্লিকসহ ৩/৪ জনে মিলে আমাকে গরুর গোবর খাইয়ে দিয়েছে। আমি তাদের ভয়ে মামলা করিনি। এখন মামলা করলে আমাকে মেরে ফেলতে পারে, আমার ভয় হয়’।

ইলিশা ফাঁড়ির ইনচার্জ রতন শীল জানান, ফেসবুকে ওই বর্বরোচিত নির্যাতনের দৃশ্য দেখে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে রশিদ মল্লিককে আটক করেছি। বাকিদের আটকের চেষ্টা চলছে।
এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Obayed
৯ আগস্ট ২০২০, রবিবার, ১২:২৩

মধ্যযুগীয় কায়দায় অত্যাচার বা নির্যাতন, কথাটা ঠিক নয়। কারণ এটা বৃটিশ ঐতিহাসিকদের বানানো মুসলিম শাসকদের প্রতি অপবাদ ছাড়া কিছু নয়।

অন্যান্য খবর