× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার

প্রেমিকাকে বিয়ে করায় এমপির ইন্ধনে অপহরণ মামলার অভিযোগ

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী থেকে | ৯ আগস্ট ২০২০, রবিবার, ৯:১৪

 রাজশাহী কলেজের অর্থনীতি তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী রওজাতুল আফরোজকে (২১) অপহরণ মামলায় মোহনপুর উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক (২৭) ও তার বাবা ছলিম সরদারকে (৫১) গ্রেপ্তারের পর কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এদিকে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের একাংশের নেতাকর্মীরা অভিযোগ তুলেছেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিনের সঙ্গে দলীয় টানাপড়েনের জেরেই ছাত্রলীগ নেতা রাজ্জাকের বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা দায়েরের পর পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করেছে। যদিও রাজ্জাক ও আফরোজ পরস্পরকে ভালোবেসে কিছুদিন আগে বিয়ে করেছেন। সংশ্লিষ্টদের আরও অভিযোগ, প্রায় এক বছর ধরে উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি রাজ্জাকের সঙ্গে এমপি আয়েনের দলীয় টানাপড়েন চলছে। এমপি তাকে বাগে আনার চেষ্টা করছিল। এখন সুযোগ পেয়ে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অবশ্য এমপি আয়েন উদ্দিন এই বিষয়ে কোন প্রভাব খাটানোর অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাক আহমেদ জানান, গত ৬ই আগস্ট সকাল ৭টার দিকে উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক, তার বাবা ছলিম সরদারসহ তিনজন মিলে উপজেলার গোজা গ্রামের বাড়ি থেকে রাজশাহী কলেজ ছাত্রী আফরোজকে অস্ত্রের মুখে অপহরণ করেন।
গত ৭ই আগস্ট রাতে কলেজছাত্রীর ভাই দেলোয়ার হোসেন সম্রাট বাদী হয়ে মোহনপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় শুক্রবার সকালে রাজ্জাকের বাবা ছলিম সরদারকে মোহনপুরের ফুলশো গ্রামের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।শুক্রবার রাতে মহানগরীর সাগরপাড়া এলাকার একটি বাড়ি থেকে রাজ্জাক গ্রেপ্তার ও অপহৃত কলেজ ছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়। শনিবার রাজ্জাক ও তার বাবাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে কলেজ ছাত্রীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য। অন্যদিকে ছাত্রলীগ নেতা রাজ্জাকের বিরুদ্ধে অপহরণ মামলাকে পরিকল্পিত দাবি করেছেন রাজ্জাকের আত্মীয়-স্বজনসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের একাংশ। রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আলফোর রহমানসহ নেতাকর্মীরা জানান, গত ৪ঠা মে ছাত্রলীগ নেতা রাজ্জাক ও কলেজ ছাত্রী রওজাতুল আফরোজ মোহনপুরের বাকশিমুইল ইউনিয়ন কাজী অফিসে গিয়ে বিয়ে করেন। পারিবারিক চাপের কারণে তারা বিয়ের খবরটি গোপন রাখেন। এরইমধ্যে আফরোজের পরিবার থেকে বিষয়টি জানতে পেরে রাজ্জাকের বিরুদ্ধে মামলা করার তৎপরতা চলছিল। গত ৬ আগষ্ট থানা পুলিশকে প্রভাবিত করে রাজ্জাকের বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা করা হয়। এ প্রসঙ্গে সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন বলেন, অভিযোগ সম্পুর্ণ মিথ্যা। মামলা দায়েরের পর রাজ্জাক আমার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেন। কিন্তু অপহরণ মামলার আসামি হওয়ায় আমি তার ফোন ধরি নি। যা হয়েছে তা আইনি প্রক্রিয়াতেই হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর