× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, শুক্রবার

লুকাশেঙ্কো জয়ের পূর্বাভাসে বেলারুশে তীব্র সংঘর্ষ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১০ আগস্ট ২০২০, সোমবার, ১১:০৮

রাষ্ট্রীয় টিভিতে বুথফেরত জরিপের ফল প্রকাশের পরই বেলারুশের রাজধানী মিনস্ক এবং অন্য শহরগুলোতে ভয়াবহ বিক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতা ও দাঙ্গা পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। রোববারে সেখানে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে দীর্ঘদিনের নেতা ও প্রেসিডেন্ট আলেকজান্দার লুকাশেঙ্কো নতুন করে নির্বাচিত হয়েছেন বলে খবর প্রকাশের পর এমন বিক্ষোভ দেখা দিয়েছে। রাজধানী মিনস্কে পুলিশ জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে স্টান গ্রেনেড ছুড়েছে। এতে বহু মানুষ আহত হয়েছে। রাষ্ট্রীয় টিভির বুথফেরত জরিপে বলা হয়, নির্বাচনে শতকরা প্রায় ৮০ ভাগ ভোট পেয়েছেন লুকাশেঙ্কো। অন্যদিকে প্রধান বিরোধী দলীয় প্রার্থী সভেতলানা তিখানোভস্কায়া (৩৭) পেয়েছেন শতকরা মাত্র ৭ ভাগ ভোট। তিনি বলেছেন, কোনোভাবেই এ তথ্য বিশ্বাস করতে পারছেন না।


সভেতলানা তিখানোভস্কায়ার ভাষায়- আমি তো আমার চোখকে বিশ্বাস করি। আমি দেখছি, সংখ্যাগরিষ্ঠরা আমাদের সঙ্গে আছেন। রোববার সন্ধ্যায় সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। বিরোধী দল বলছে, তারা মনে করছে নির্বাচনে জালিয়াতি হয়েছে। তারা ভোটের বিকল্প গণনা দাবি করেন। জেলে বন্দি তার স্বামীর পরিবর্তে নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন তিখানোভস্কায়া। এর  মধ্য দিয়ে তিনি বিরোধীদের বিশাল র‌্যালিতে নেতৃত্ব দিয়েছেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। এতে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট লুকাশেঙ্কো ক্ষমতায় আছেন ১৯৯৪ সাল থেকে। তিনি প্রত্যয় ঘোষণা করে বলেছেন, দেশের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। এর আগে রোববারের নির্বাচনের পূর্বেই বিরোধী দলীয় নেতাকর্মী এবং সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ব্যাপক দমনপীড়ন চালায় তার সরকার। তা সত্ত্বেও দেশের সবচেয়ে বড় বিরোধী দল দেশে বিশাল বিশাল র‌্যালি করে।

রোববার রাতে খবর ছড়িয়ে পড়ার পর পরই মিনস্ক-হিরো সিটির কাছে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। প্রত্যক্ষদর্শী ও সাংবাদিকরা বলেছেন, এ সময় বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে রাবার বুলেট ও জলকামান ব্যবহার করে দাঙ্গা পুলিশ। ঘটনাস্থলে দ্রুত ছুটে যেতে দেখা যায় বেশ কয়েকটি এম্বুলেন্সকে। রাজধানীদের পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষের ফুটেজ প্রকাশ হয়ে পড়েছে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, বেশ কিছু মানুষকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় লুকাশেঙ্কোকে উদ্দেশ্য করে বিক্ষুব্ধ জনতা ‘বিদায় হও’ বলে স্লোগান দিতে থাকেন। একই রকম বিক্ষোভ হয়েছে ব্রেস্ট এবং ঝোদিনো শহরেও। ইন্টারনেটে নজরদারিকারী গ্রুপ নেটব্লকস এর আগেই বলেছে, বেলারুশের ইন্টারনেট সংযোগ বিঘিœত করা হয়েছে। দিনভর পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছিল। এর ফলে সেখানে তথ্যের একটি শূন্যতা সৃষ্টি হয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর