× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার

ওসি প্রদীপকে পরামর্শ দিয়ে অনুতপ্ত আল্লাহ বক্‌শ

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম থেকে | ১২ আগস্ট ২০২০, বুধবার, ৯:০১

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যাকাণ্ডের পর বরখাস্ত হওয়া টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশকে টেলিফোনে মামলা সাজানোর পরামর্শ দিয়ে অনুতপ্ত বলে মন্তব্য করেছেন পুলিশের সাবেক এসপি আল্লাহ বক্‌শ। মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে অনুতপ্ত হওয়ার কথা জানান তিনি। আল্লাহ বক্‌শ বর্তমানে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসার কল্যাণ সমিতি চট্টগ্রাম শাখার সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। এ শাখার প্যাডে তিনি লিখিত বিজ্ঞপ্তি প্রেরণ করেন। তিনি বলেন, গত ১লা আগস্ট টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ-এর সঙ্গে ফোনালাপের বিষয়টি প্রকাশ হওয়ার পর গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। আত্মীয়স্বজন-বন্ধুবান্ধব এ নিয়ে প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছেন। অনেকে আমি খুব খারাপ কাজ করেছি বলে ধারণা পোষণ করছেন। তাই নিজের কৃতকর্মের জন্য অনুতপ্ত হয়ে আমি দুঃখ প্রকাশ করছি।
তিনি বলেন, কর্মরত পুলিশ অফিসাররা বিভিন্ন সময়ে অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসারদের কাছে বিভিন্ন কাজে আইনি পরামর্শ চেয়ে থাকেন। ওই দিন ওসি প্রদীপও তার মতো করে ঘটনার বর্ণনা দিয়ে আইনি পরামর্শ চেয়েছিলেন। কিন্তু আসল ঘটনা গোপন করে ওসি প্রদীপ টেলিফোনে যা বলেছেন, তার প্রেক্ষিতেই তাকে পরামর্শ দেয়া হয়েছিল। তিনি বলেন, আইনি পরামর্শ দেয়ার সময় সেনাবাহিনীর প্রতি তার অবজ্ঞা নিয়ে প্রশ্ন উঠে। কিন্তু আমার বাচনভঙ্গি বিকৃত হয়। যা আমার অনিচ্ছাকৃত স্লিপ অব টাং। এতে আমি অনুতপ্ত, মর্মাহত। আমার মাধ্যমে তাদের অবজ্ঞা করার প্রশ্নই আসে না। তবুও এর জন্য আমি আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি।
প্রসঙ্গত, গত ৩১শে জুলাই টেকনাফ বাহারছড়া চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এ ঘটনায় পুলিশ তড়িঘড়ি করে দুটি মামলা করেন। মামলায় নিহত সিনহার সফরসঙ্গী শিপ্রা ও সিফাতকে আসামি করা হয়। সেই মামলায় বেশ কয়েকজনকে সাক্ষী করা হয়। আর এই মামলা সাজানোর আগে টেলিফোনে সাবেক এসপি আল্লাহ বক্‌শ থেকে পরামর্শ নেন ওসি প্রদীপ কুমার দাশ। যা সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে এর প্রেক্ষিতে আল্লাহ বক্‌শ অনুতপ্ত হয়ে গণমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি প্রেরণ করেন। আল্লাহ বকশ চৌধুরী পুলিশ সুপার পদ থেকে ৬ বছর আগে অবসরে যাওয়ার পর চট্টগ্রামের খুলশী মুরগির খামার এলাকায় নিজস্ব ভবনে বসবাস করছেন। তার গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলা লালানগর ইউনিয়নে। তার ছোট ভাই খোদা বক্‌শ বিএনপি সরকারের সময় পুলিশের আইজিপি ছিলেন। ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় দীর্ঘদিন কারাভোগ করে বর্তমানে জামিনে আছেন।
এদিকে এ ঘটনায় নিহত সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস ৫ই আগস্ট বাদী হয়ে কক্সবাজার বিচারিক হাকিমের আদালতে পুলিশের বরখাস্ত পরিদর্শক লিয়াকত আলী ও বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ নয়জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। ওইদিন রাতেই টেকনাফ থানায় মামলাটি নথিভুক্ত হয়। ৬ই আগস্ট বরখাস্ত পরিদর্শক লিয়াকত ও ওসি প্রদীপসহ মামলার সাত আসামি আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। এতে র‌্যাব আদালতে প্রত্যেক আসামির বিরুদ্ধে ১০ দিন করে রিমান্ডের আবেদন করলে বিচারক লিয়াকত, প্রদীপ ও দুলালকে সাতদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর এবং চারজন আসামিকে দু’দিন করে কারাফটকে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেন। এ ছাড়া অনুপস্থিত থাকা পলাতক আসামি এএসআই টুটুল ও কনস্টেবল মোস্তফাকে পলাতক দেখিয়ে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। কিন্তু জেলা পুলিশের তথ্যমতে, এ নামে বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্র ও টেকনাফ থানায় কোনো পুলিশ সদস্য কর্মরত নেই।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর