× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনসাক্ষাতকাররকমারিপ্রবাসীদের কথামত-মতান্তরফেসবুক ডায়েরিবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা মন ভালো করা খবরকলকাতা কথকতা
ঢাকা, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, সোমবার

মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র থেকে বিতাড়িত হয়ে অটোরিকশা ভ্যানে সন্তান প্রসব

বাংলারজমিন

উত্তরাঞ্চল প্রতিনিধি | ১৩ আগস্ট ২০২০, বৃহস্পতিবার, ৮:৪০

 গাইবান্ধায় মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে ঠাঁই না পাওয়ায় রাস্তায় সন্তান প্রসব করেছেন এক প্রসূতি। বুধবার গভীর রাতে শহরের ডিবি রোডে সন্তান প্রসব করেন তিনি। পরে পুলিশের সহযোগিতায় অসুস্থ অবস্থায় মা ও শিশুকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
ভুক্তভোগীর স্বজন ও পুলিশ জানায়, সাঘাটা উপজেলার বোনার পাড়ার গৃহবধু জেমি বেগম প্রসব বেদনা নিয়ে  সিনএনজি যোগে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক  উপস্থিত না থাকায় কেন্দ্রের পরিদর্শিকা  সেলিনা আক্তার প্রসূতিকে  ভর্তি না নিয়ে, তাদের অন্যত্র যেতে বলেন। নিরুপায় প্রসূতির স্বজনরা আকুতি-মিনতি করলেও কেন্দ্রে থাকা পরিদর্শিকাসহ স্বাস্থ্য কর্মী ও আয়ারা প্রসূতিসহ তার স্বজনদের মারধর করে তাড়িয়ে দেয়। বিতারিত হয়ে পরে শহরের ডিবি রোডের পরিত্যক্ত ঘরে  মেয়ে সন্তান প্রসব করেন ঐ প্রসূতি মা। পরে এলাকাবাসী ও পুলিশের সহযোগিতায় অসুস্থ অবস্থায় মা ও শিশুকে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
গাইবান্ধা সদর থানার ওসি খান মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, ৯৯৯ থেকে ফোন পেয়ে তারা গভীর রাতে প্রসূতিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছেন।
তার যাবতীয় সেবার ব্যবস্থার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত ৬ই এপ্রিল সদর উপজেলার লক্ষীপুর ইউনিয়নের  গোবিন্দপুর গ্রামের প্রসূতি মিষ্টি আকতারকে মা ও শিশু কল্যান কেন্দ্র থেকে তাড়িয়ে দেন, কেন্দ্রের সিনিয়র স্বাস্থ্য কর্মী তৌহিদা বেগম।   সেই প্রসূতি মা কেন্দ্রের কয়েক’শ গজ দূরেই অটোরিকশা ভ্যানের মধ্যে সন্তান প্রসব করেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর